kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

যাদুকাটা ও রক্তি নদীতে চলছে নৌপরিবহন ধর্মঘট

তাহিরপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যাদুকাটা ও রক্তি নদীতে চলছে নৌপরিবহন ধর্মঘট

সুনামগঞ্জের যাদুকাটা ও রক্তি নদী দিয়ে চলাচলকারী মালবোঝাই নৌযান থেকে বিভিন্ন স্থানে চাঁদা আদায়ের প্রতিবাদে নৌপরিবহন ধর্মঘট শুরু করেছে নৌযান মালিক, শ্রমিক ও ব্যবসায়ীরা। এ পথে চলাচলকারী নৌকা মালিক শ্রমিক ও ব্যবসায়ীদের ব্যানারে এ নৌধর্মঘট আহ্বান করা হয়।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে জেলার তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের যাদুকাটা নদীর সোহালা নতুন বাজার এলাকায় এ দাবিতে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, চাঁদা আদায় বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ না করা পর্যন্ত যাদুকাটা ও রক্তি নদী দিয়ে অনির্দ্দিষ্টকালের জন্য মালবাহী নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে। এ সময় বক্তব্য রাখেন যাদুকাটা নৌকা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. ছিদ্দিক মিয়া, নৌযান মালিক বাছিরমিয়া, মুক্তিযোদ্ধা আদুস ছাত্তার, নৌযান চালক জসিম উদ্দিন, লোড আনলোড শ্রমিক নাছির মিয়া, নৌযান শ্রমিক আব্দুল আলী প্রমুখ।

স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, যাদুকাটা নদীর তাহিরপুর উপজেলার ঘাগড়া, রক্তি নদীর পাতারি ও নোয়াহাট স্থানে এবং রক্তি নদীর বিশম্ভরপুর উপজেলার ফতেহপুর ইউনিয়নের রঙারচর এলাকায় জোর করে মালবাহী নৌযান থেকে চাঁদা আদায় করা হয়। কেউ প্রতিবাদ করলে মারধোর করে চাঁদা আদায়কারী সংঘবদ্ধ চক্র। প্রতিটি স্থানে একটি নৌযান থেকে দুই হাজার থেকে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত চাঁদা আদায় করা হয়।

চাঁদা আদায় বন্ধে যাদুকাটা নৌকা মালিক সমিতি গত ১২ ডিসেম্বর স্থানীয় সাংসদ, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিত আবেদন করেছিলেন।

যাদুকাটা নৌকা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিক মিয়া বলেন, নৌপথে অতিরিক্ত চাঁদার কারণে ব্যবসায়ীরা এ এলাকা থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তাই বাধ্য হয়ে আমরা এ নৌ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা