kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

দিনাজপুরে চেয়ারম্যান ও প্রথম আলো প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দিনাজপুরে চেয়ারম্যান ও প্রথম আলো প্রতিনিধির বিরুদ্ধে মামলা

দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আতাউর রহমান ও প্রথম আলো দিনাজপুর প্রতিনিধি রাজিউল ইসলাম রাজুর নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। রবিবার নবাবগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহিনুর রহমান সবুজ বাদী হয়ে নবাবগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ১৫ জানুয়ারি বুধবার 'দৈনিক প্রথম আলো' পত্রিকায় 'কাটল জনতা বাধঁল প্রশাসন' শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ হয়। এতে নবাবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান তার বক্তব্যে স্থানীয় সংসদ শিবলী সাদিককে ও উপজেলা ছাত্রলীগের কিছু নেতাকে জড়িয়ে বক্তব্য দেন।

প্রথম আলোর সংবাদে উপজেলা চেয়ারম্যান তার বক্তব্যে বলেন, এই বাঁধ কাটার পেছনে স্থানীয় সংসদ শিবলী সাদিকের হাত রয়েছে। সম্প্রতি নবাবগঞ্জ বনকে জাতীয় উদ্যান ঘোষণা করা হয়েছে। আশুড়ার বিলকে পযটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। এ কারণে সংসদের ব্যক্তিগত পযটন কেন্দ্র স্বপ্নপুরীতে পযটন কমে গেছে। তার মদদে ছাত্রলীগের কিছু নেতাকর্মী এলাকার কিছু লোকের যোগসাজশে বাঁধটি কেটে ফেলা হয়েছে। তিনি দাবি করেন- এই ঘটনায় তার কাছে ভিডিও চিত্র রয়েছে যা দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহিনুর রহমান সবুজ বলেন, দলের মধ্যে বিভ্রান্ত এড়াতে ‘প্রথম আলোর পত্রিকার ’সংবাদের মধ্যেমে স্থানীয় ছাত্রলীগ, স্থানীয় সংসদকে জড়ানোর জন্য নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। যাতে করে স্থানীভাবে কোনো সহিংসতা না ছড়ায়।

এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউরের মোবাইল ফোনে বার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

মামলার বিষয়ে প্রথম আলো দিনাজপুর প্রতিনিধি রাজিউল ইসলাম রাজু বলেন, আমি উভয়ের বক্তব্য নিয়ে সংবাদটি প্রকাশ করেছি। এতে আমার ব্যক্তিগত স্বার্থ নেই।

আশুড়ার বিলে বাঁধ কাটা হরিপুর গ্রামের ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৫০০ থেকে ৬০০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। পরে ওই স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

এদিকে বাঁধকাটা মামলায় নবাবগঞ্জ থানাপুলিশ অভিযান চালিয়ে ৬ জনকে আটক করেছে এবং ৩ জন আদালতে আত্মসমর্পণ করে। এর মধ্যে ৩ ব্যক্তি জামিনে রয়েছেন বলে থানার ওসি নিশ্চিত করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা