kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

বাঘায় মুক্তিযোদ্ধাকে যুবলীগ নেতার বাড়ি ছাড়ার হুমকি

বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি   

২১ জানুয়ারি, ২০২০ ১৭:১৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাঘায় মুক্তিযোদ্ধাকে যুবলীগ নেতার বাড়ি ছাড়ার হুমকি

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের জমি নিয়ে দ্বন্দ্বে এক মুক্তিযোদ্ধাকে যুবলীগ নেতা বাড়ি ছাড়ার হুমকি দিয়েছে। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা বাদী হয়ে আজ মঙ্গলবার (২১ জানুয়ারি) ওই নেতার বিরুদ্ধে থানায় একটি অভিযোগ করেন।

জানা যায়, উপজেলার হরিপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা শুকচাঁন আলী জন্ম সূত্রে এক বিঘা ৫ কাঠা জমির ওপর ছাপরা ঘর নির্মাণ করে স্বামী-স্ত্রী বসবাস করছেন। একই গ্রামের মৃত আহাদ আলীর ছেলে আতাহার আলীসহ তার লোকজন ওই মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করেন। ফলে মুক্তিযোদ্ধা নিরুপায় হয়ে বাঘা থানায় তাদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

এই অভিযোগের পর রবিবার (১৮ জানুয়ারি) বাঘা থানার পুলিশ তদন্ত করে। পুলিশ উভয়কে থানার আসার জন্য আহ্বান জানান। কিন্তু তারা থানায় হাজির না হয়ে স্থানীয় যুবলীগ নেতাকে দিয়ে মুক্তিযোদ্ধাকে অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা বাদী হয়ে আতাহার আলী, আশরাফুল ইসলাম হাইড্রোজ, আশরাফুল ইসলাম ও আকতার আলীর নামে অভিযোগ করা হয়েছে।  

এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা শুকচাঁন আলী অভিযোগ করেন বলেন, আমি রবিবার (১৯ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৭টার দিকে হরিপুর বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলাম। এ সময় আড়ানী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আশরাফুল ইসলাম হাইড্রোজ ও ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম আমার পথরোধ করে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দেয়। এ সময় তাদের কাছে থেকে কৌশলে দৌড়ে পালিয়ে রক্ষা পাই। আমার ৪ ছেলে ও ২ মেয়ে রয়েছে। তারা বিয়ে করে কেউ শ্বশুর বাড়ি আবার কেউ ঢাকায়। ফলে আমার ছেলে-মেয়ে থেকেও নেই। আমি মুক্তিযোদ্ধার যে সম্মানি পাই তা দিয়ে দুজনের ভালোভাবে সংসার চলে যায়। এ ছাড়া এ টাকা থেকে কিছু বাচিয়ে মসজিদ মাদরাসায় সহযোগিতা করি। বর্তমানে বৃদ্ধ স্ত্রীকে নিয়ে নিরাপত্তাহীণতার মধ্যে রয়েছি।

এ বিষয়ে আতাহার আলী বলেন, জমি নিয়ে বিরোধ আছে। এ নিয়ে মাঝে মধ্যে দ্বন্দ্ব হয়। তবে তাকে বাড়ি ছাড়ার মতো কোন হুমকি দেওয়া হয়নি।

আড়ানী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান প্রভাষক রফিকুল ইসলাম বলেন, রাস্তার জমি নিয়ে মুক্তিযোদ্ধার সাথে স্থানীয় কিছু মানুষের দ্বন্দ্ব চলছে। এ নিয়ে একবার ঘটনাস্থলে গিয়ে সমাধান করে দেওয়া হয়েছিল। আবার তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। তবে হুমকির বিষয়ে আমাকে মুক্তিযোদ্ধা জানিয়েছেন।

বাঘা থানার পিএসআই আমানুল্লাহ বলেন, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। ওসি স্যারের নির্দেশে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা