kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৭ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪১

কৃষক রশিদ হত্যায় প্রধান আসামির যাবজ্জীবন

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি    

২০ জানুয়ারি, ২০২০ ১৪:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কৃষক রশিদ হত্যায় প্রধান আসামির যাবজ্জীবন

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে কৃষক আবদুর রশিদ হত্যা মামলার প্রধান আসামি গিয়াস উদ্দিনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। মামলায় অন্য ছয়  আসামিকে খালাস দেওয়া হয়।

রায়ের সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না।

আজ সোমবার (২০ জানুয়ারি) দুপুরে লক্ষ্মীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. শাহেনূর এ রায় দেন। জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) মো. জসিম উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি গিয়াস উপজেলার উদনপাড়া গ্রামের মৃত কাদর আলীর ছেলে।

খালাসপ্রাপ্তরা হলেন দণ্ডপ্রাপ্ত গিয়াসের ভাই মন্তাজ মিয়া, তোফাজ্জল হোসেন, ভাতিজা দেলোয়ার হোসেন, ইমান হোসেন, কাউছার ও শফিক।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, মামলার বাদী ছিদ্দিক মিয়ার মেয়ে হাজেরা খাতুনের কাছ থেকে আসামি গিয়াস টাকা ধার চান। কিন্তু টাকা দিতে না পারায় হাজেরার সঙ্গে গিয়াসের ঝগড়া হয়। এর জের ধরে ২০১২ সালের ১৭ আগস্ট আসামিরা লাঠিসোঁটা নিয়ে ছিদ্দিকের বাড়িতে এসে গালমন্দ করেন। এতে বাধা দিলে বাদীর বড় ভাই আবদুর রশিদকে লোহার দণ্ড দিয়ে গিয়াস আঘাত করেন। এতে তার ঘাড় রক্তাক্ত ও জখম হয়। ওইসময় হাজেরাকেও মারধর করা হয়।

চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন জড়ো হতে থাকলে আসামিরা পালিয়ে যান। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও পরে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আবদুর রশিদ মারা যান।

২০১৩ সালের ২৮ জানুয়ারি মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবুল কাশেম সাতজনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। দীর্ঘ সাক্ষ্যগ্রহণ ও শুনানি শেষে সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় প্রধান আসামি গিয়াসকে আদালত যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা