kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৩০ জমাদিউস সানি ১৪৪১

টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা নিহত

ইয়াবা ও অস্ত্র উদ্ধার

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ১০:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টেকনাফে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রোহিঙ্গা নিহত

ফাইল ফটো

কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তে ২ লাখ ২০ হাজার পিস ইয়াবা ও একটি দেশে তৈরি অস্ত্র উদ্ধার করেছে ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন (বিজিবি)। এ ঘটনায় ইয়াবা পাচারকারীদের সঙ্গে বিজিবির গোলাগুলির ঘটনায় মো. আইয়াস (২৫) নামে এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হয়েছে। সে উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মো. জামাল হোসেনের ছেলে।

শনিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে নাফ নদের তীরে জাদিমুড়া শেকলঘেরা নামক এলাকায় গোলাগুলির ঘটনাটি ঘটেছে।

টেকনাফ ২ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, মিয়ানমার থেকে ইয়াবার একটি বড় চালান বাংলাদেশে পাচার হওয়ার গোপন সংবাদে বিজিবির একটি বিশেষ টহল দল হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমুড়া শেকলঘেরা এলাকায় নাফনদের তীরে অবস্থান নেয়। এ সময় মিয়ানমারের লালদ্বীপ থেকে কয়েকজন ব্যক্তিসহ একটি নৌকা বাংলাদেশের দিকে আসতে লক্ষ্য করে বিজিবি। নৌকাটি নাফের কিনারায় ভিড়লে বিজিবি টহল দল নৌকায় থাকা লোকজনকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে থামার সংকেত দেয়। এ সময় তারা অতর্কিতে বিজিবি টহলদলের উপর গুলি ছুড়ে। এতে বিজিবির তিন সদস্য আহত হয়। পরে বিজিবিও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালালে নৌকায় থাকা পাচারকারীদের তিনজন নাফ নদে ঝাঁপ দিয়ে মিয়ানমারের দিকে সাঁতরিয়ে শূন্যরেখা অতিক্রম করে। বিজিবি সদস্যরা নৌকাটি জব্দ করতে সক্ষম হন এবং সেখানে একজনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

লে. কর্ণেল ফয়সল হাসান খান আরো জানান, আটককৃত নৌকাটি তল্লাশি করে ৬ কোটি ৬০ লাখ টাকা মূল্যের ২ লাখ ২০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং গোলাগুলিতে নিহত পাচারকারীর সাথে একটি দেশে তৈরী অস্ত্র, কার্তুজ ও একটি কার্তুজের খালি খোসা পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে সরকারি কর্তব্য পালনে বাধা প্রদান এবং অবৈধ মাদক পাচারের দায়ে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনী কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা