kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

হেরিটেজ ও সিভিল সোসাইটিজ ফোরামের গুনীজণ সম্মাননা সভায় আশিকুর রহমান এমপি

কক্সবাজার দেশের অফুরন্ত সম্ভাবনার পর্যটন শহর

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০২:৫০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কক্সবাজার দেশের অফুরন্ত সম্ভাবনার পর্যটন শহর

জাতীয় সংসদের জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ এইচ এম আশিকুর রহমান এমপি বলেছেন, কক্সবাজার দেশের অফুরন্ত সম্ভাবনাময় পর্যটন শহর। তাই এখানকার বিশুদ্ধ পানি ও বাতাস নির্মল রাখতে হবে। 

আন্তর্জাতিকভাবে পরিচিত এ শহরে দেশি-বিদেশি প্রতিদিন হাজার হাজার পর্যটকের আগমন হয়। তাদের কাছে কক্সবাজারের সকল ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ করে তা উপস্থাপন করতে পারলে দেশের সুনাম আরো বাড়বে।

শুক্রবার বিকালে বাংলাদেশ হেরিটেজ স্টাডি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন ও সিভিল সোসাইটিজ ফোরাম কক্সবাজার কর্তৃক আয়োজিত শহরের শহীদ দৌলত ময়দানে অনুষ্ঠিত কক্সবাজারের ইতিহাস ঐতিহ্য সাংস্কৃতি সংরক্ষণ ও উন্নয়ন বিষয়ক আলোচনা এবং গুনীজন সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আমিন আল পারভেজের সভাপতিত্বে ও সিভিল সোসাইটিজ ফোরামের সভাপতি ফজলুল কাদের চৌধুরীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রনালয়ে যুগ্ম সচিব জাকির হোসেন, কউক চেয়ারম্যান লে. কর্নেল ফোরকান আহম্মদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, কক্সবাজার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ এ কে এম ফজলুল করিম চৌধুরী, সিটি কলেজের অধ্যক্ষ ক্যা থিং অং, হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারী অ্যাডভোকেট শাহেদা খাঁন, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের পরিচালক (চট্টগ্রাম-সিলেট বিভাগ) ড. আতাউর রহমান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সিভিল সোসাইটিজ ফোরামের সেক্রেটারী আ ন ম হেলাল উদ্দিন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সাংসদ খোরশেদ আরা হক, উখিয়ার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহমুদুল হক চৌধুরী, জাসদ সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুল, পিপি অ্যাডভোকেট ফরিদসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা।

আলোচনা সভার শুরুতে কক্সবাজারের ইতিহাস ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও সামাজিক কল্যাণমূলক কাজে অবদানের জন্য ১২ গুনীজনকে সম্মানিত করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে নুরুল আলম কুতুবীসহ স্থানীয় শিল্পীদের নিয়ে মনোজ্ঞ আঞ্চলিক গান পরিবেশন করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা