kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

ঠিকানা হারিয়েছেন শতবর্ষী নারী

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, চাঁপাইনবাবগঞ্জ   

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ২০:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঠিকানা হারিয়েছেন শতবর্ষী নারী

নিজের পরিচয়,পরিবার,ঠিকানা কিছুই মনে করতে পারছেন না। এলোমেলো তথ্য দিলেও তাতে মিলছে না স্বজনের সন্ধান। তীব্র শীত ও বার্ধক্যে কাবু শতবর্ষী এক নারীর ঠাঁই হয়েছে এখন হাসপাতালে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের রহনপুর রেলস্টেশন প্লাটফর্ম থেকে তাকে উদ্ধার করা হয় রবিবার। প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেয়া হলেও নারীর পরিচয় উদঘাটন সম্ভব হয়নি।

গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক সালাউদ্দিন আহমেদ জানান,হাসপাতালে ভর্তির তৃতীয়দিন মঙ্গলবার তিনি একটু একটু করে কথা বলছেন। শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটছে ধীরে ধীরে। মঙ্গলবার দুপুরে গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান,উপজেলা চেয়ারম্যান হুমায়ুন রেজা,রহনপুরের পৌর মেয়র তারিক আহমেদ,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান হাসানুজ্জামান নুহু,জেলা পরিষদ সদস্য হালিমা বেগমসহ অনেকে তাকে দেখতে হাসপাতালে যান। তারা শতবর্ষী নারীর শারিরিক অবস্থার খোঁজখবর নেন। বিভিন্ন সময়ে কথা প্রসঙ্গে বৃদ্ধা তার বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার কোঁটচাদপুর,কালিগঞ্জ,আবার যশোর ও খুলনার কথা বলেছেন। ধারণা দিলেও নিজের বাড়ির কথা নিশ্চিত মনে করতে পারছেন না তিনি।

সূত্র জানায়, প্রায় দুই সপ্তাহ ধরে শতবর্ষী এক নারী অবস্থান করছিলেন রহনপুর রেলস্টেশনের ২ নম্বর প্লাটফর্মে একটি তেঁতুল গাছের পাশে। তীব্র শীতে তিনি কষ্ট পাচ্ছিলেন। খাবার দিয়ে অনেকে সহযোগিতা করলেও খড়ের বিছানায় দিন কাটাচ্ছিলেন তিনি চরম কষ্টে। গত রবিবার রাতে শতবর্ষী এ নারীকে উদ্ধার ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন পুলিশের রহনপুর তদন্ত কেন্দ্রের আইসি আব্দুল মালেক,এএসআই তৌহিদুল ইসলামসহ কয়েকজন। রেলস্টেশন থেকে তাকে উদ্ধার করে গোমস্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে তারা চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে যান জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের অনেকে। তারা শতবর্ষী বৃদ্ধার পাশে থাকার আগ্রহ প্রকাশ করেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার ফেসবুক পেজে নারীর পরিচয় উদঘাটনে সহযোগিতা চেয়ে একটি পোষ্ট দেওয়া হয়েছে। অন্যরা তা শেয়ার করছেন। দ্রুতই তাকে স্বজনদের কাছে ফিরিয়ে দেয়া সম্ভব হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা