kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

জয়বাংলা শ্লোগান দিয়ে ক্রস ড্যামের বাঁধ কেটে দিল গ্রামবাসী

বিরামপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি   

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ১৮:৪২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জয়বাংলা শ্লোগান দিয়ে ক্রস ড্যামের বাঁধ কেটে দিল গ্রামবাসী

উপজেলা প্রসাশনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হাজার খানেক গ্রামবাসী জয়বাংলা শ্লোগান দিয়ে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ আশুড়ার বিল ও শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যানের পাশে নির্মিত ক্রস ড্যামের বাঁধ কেটে দিয়েছে।

এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছা. নাজমুন নাহার ওই গ্রামবাসীদের শান্ত হতে বললেও তারা কোনো কথায় শোনেনি। পরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে পার্শ্ববর্তী উপজেলা বিরামপুর ও দিনাজপুর পুলিশ লাইন্স এবং র‌্যাব সদস্যরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে এই ঘটনায় কোনো হতাহত হয়নি।

আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে নবাবগঞ্জ আশুড়ার বিলের পাশে হরিপুর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. নাজমুন নাহার কালের কণ্ঠকে বলেন, সোমবার গভীর রাতে কোনো এক সময় শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যানের পাশে আশুড়ার বিলের পানি ধরে রাখার জন্য নির্মিত ক্রস ড্যামের পাশে দুই জায়গায় বাঁধ কেটে দেওয়া হয়েছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে কেটে দেওয়া বাঁধটি সংস্কারের জন্য উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আল মামুনকে সঙ্গে নিয়ে সেখানে যান। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় কেটে দেওয়া বাঁধটি মাটি ও গাছের গুড়ি দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তিনি বলেন, বাঁধটি সংস্কারের কিছুক্ষণের মধ্যে পার্শ্ববর্তী হরিপুর গ্রামের প্রায় হাজার খানের নারী ও পুরুষ দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ওই বাঁধটি পূনরায় কেটে দেয়। এ সময় গ্রামবাসীদের শান্ত হতে বললেও তারা কোনো কথার কর্ণপাত করেনি। বরং তারা যাবার সয়ম সেখানে কয়েকটি বাইসাইকেল গুঁড়িয়ে দেয়।
এদিকে ওই ক্রস ড্যামের বাঁধ কেটে দেওয়ায় পার্শবর্তী গ্রামের প্রায় ৩০ বিঘা জমিতে থাকা বীজ তলা তলিয়ে গেছে।

ইউএনও বলেন, এ ঘটানা উত্তেজনা বিরাজ করলে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়। পরে বিরামপুর ও দিনাজপুর পুলিশ লাইন্স এবং র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

সরেজমিনে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৩টায় হরিপুর বাজারে কথা হয় স্থানীয় কয়েক ব্যক্তির সঙ্গে। তারা বলেন, আশুড়ার বিলের পাশে প্রায় ১৯ হেক্টর জমিতে আমন ও ইরি ধান চাষ করা হতো। কিন্তু ক্রস ড্যাম নির্মাণের ফলে কোন ধান রোপন হয় না। ১৯৪৪ সাল থেকে গ্রামবাসী এই জমিগুলো ভোগদখল করে আসছিল।

উপজেলা সহকারী কমিশনা (ভূমি) মো. আল মামুন কালের কণ্ঠকে বলেন, আশুড়ার বিলের পাশে জমিগুলো সরকারের খাস জমি। গ্রামবাসীদের দাবি ভিত্তিহীন।

বিরামপুর সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মিথুন সরকার কালের কণ্ঠকে বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়েছি। পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।  বিকেল সাড়ে ৪টায় স্থানীয়দের সহায়তায় ভেঙে ফেলা বাঁধটি মাটি ও গাছের গুড়ি দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় দিনাজপুর অতিরিক্ত জেলাপ্রশাসক আবু সালেহ মো. মাহ্ফুজুল আলম, উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা