kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

রিমান্ড শেষে জেলহাজতে শরিয়ত বয়াতি

মির্জাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি   

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ১৬:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রিমান্ড শেষে জেলহাজতে শরিয়ত বয়াতি

ইমাম, ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি ও মহানবী (সা.) সম্পর্কে আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে গ্রেপ্তারকৃত বয়াতি শরিয়ত সরকারকে তিন দিনের জিজ্ঞাসাবাদ শেষে টাঙ্গাইল জেলহাজতে পাঠিয়েছে মির্জাপুর থানা পুলিশ। শনিবার সকালে মির্জাপুর থানা পুলিশ ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার বাশিল এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে। বয়াতি শরিয়ত সরকার মির্জাপুর উপজেলার আগধল্যা গ্রামের মৃত পবন সরকারের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, বয়াতি শরিয়ত সরকার গত ২৪ ডিসেম্বর ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার রৌহাট্রেক পালাগানের অনুষ্ঠানে গান পরিবেশন করেন। এ সময় তিনি ইমাম, ইসলাম ধর্ম ও মহানবী (সা.) সম্পর্কে আপত্তিকর বক্তব্য দেন। তার এই বক্তব্য ইউটিউবে প্রচার হলে তার নিজ এলাকা আগধল্যা গ্রামের মুসল্লিরা বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। মুসল্লিরা ওই বাউলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের মাধ্যমে উপযুক্ত বিচার দাবি করেন। এই ঘটনায় আগধল্যা গ্রামের মাওলানা ফরিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মির্জাপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলার ভিত্তিতে মির্জাপুর থানা পুলিশ শনিবার তাকে গ্রেপ্তার করে। 

এদিকে বয়াতি শরিয়ত সরকার গ্রেপ্তারের খবর ছড়িয়ে পড়লে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বাউলশিল্পী এবং তার পরিবারের সদস্যসহ গ্রামের লোকজন তাকে দেখতে প্রতিদিন মির্জাপুর থানায় ভিড় করেন। শরিয়ত বয়াতির ভাই মারফত সরকার বলেন, আমার ভাই একজন মাটির মানুষ। সে একজন ধর্মপ্রাণ মুসলমান। 

বয়াতি শরিয়ত সরকারকে দেখতে আসা বাউলশিল্পী বাবলি দেওয়ান বলেন, মানুষ ভুলের ঊর্ধ্বে নয়। হয়তো-বা শরিয়ত সরকারের বেলায় তা হতে পারে। পালাগান গাইতে গিয়ে আমাদের বিভিন্ন যুক্তি-তর্ক করতে হয়। তখন কোনো ভুল হতে পারে। বাউলশিল্পী কাজল দেওয়ান বলেন, কথা বলতে গেলে কোনো না-কোনো ভুল হতে পারে। বয়াতি শরিয়ত সরকারের ক্ষেত্রেও তা-ই হয়েছে। তার বক্তব্য মুসলমানের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হেনেছে, তা দুঃখজনক। দেশের বাউলশিল্পীদের পক্ষ থেকে কাজল দেওয়ান মুসল্লিদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।

মির্জাপুর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সায়েদুর রহমান বলেন, বয়াতি শরিয়ত সরকারকে গ্রেপ্তারের পর ১০ দিনের ডিমান্ড আবেদন করে টাঙ্গাইলের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হয়। আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আসলাম তার তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার আদালতের মাধ্যমে বয়াতি শরিয়ত সরকারকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা