kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরকে বলাৎকারের অভিযোগ

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৭:৪৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরকে বলাৎকারের অভিযোগ

পাবনার চাটমোহরে এক মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোরকে বলাৎকার করার অভিযোগ উঠেছে একই এলাকার আব্দুস সাত্তার (৫৫) নামের এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে শনিবার রাতে গ্রাম্য সালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশ সেখানে হাজির হয়ে কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির ওয়ার্ড সভাপতি ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সোয়েব আলি নামের একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায়। এ সময় অভিযুক্ত সাত্তারসহ তার সহযোগীরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। গত ১৩ ডিসেম্বর শুক্রবার রাতে উপজেলার হরিপুর ইউনিয়নের ধুলাউড়ি বটতলা গ্রামে এই বলাৎকারের ঘটনা ঘটে। 

থানা পুলিশ ও এলাকাবাসীর তথ্যে জানা গেছে, মানসিক প্রতিবন্ধী কিশোর ধুলাউড়ি বটতলা বাজারের একটি চা স্টলে ওয়েটার হিসেবে কাজ করত। সেখানে কাজ শেষ করে রাতে বাড়ি ফেরার সময় একই এলাকার আব্দুস সাত্তার তাকে মুখ চেপে ধরে বাজারের পাশের একটি নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে বলাৎকার করে। পরে ওই কিশোর বাড়িতে গিয়ে কান্না করে পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি খুলে বলে। রাতেই বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে স্থানীয় প্রধানবর্গ সালিস বৈঠকের মাধ্যমে বিষয়টি সুরাহা করার আশ্বাস প্রদান করে কিশোরের পরিবারকে। পরের দিন (শনিবার) রাতে এলাকার প্রধানবর্গ ধুলাউড়ি বটতলা বাজার এলাকায় ঘটনাটি মীমাংসা করার লক্ষ্যে পুনরায় বৈঠকে বসলে পুলিশ সেখানে হাজির হলে অভিযুক্ত সাত্তারসহ তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। এ সময় সালিস বৈঠকের আয়োজক কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির ওয়ার্ড সভাপতি ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতাকে ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

হরিপুর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মহসিন মোল্লা জানান, আমি বিষয়টি আজ সকালেই জানতে পারলাম। এলাকার সকল অপকর্ম ধাপাচাপা দেওয়ার জন্য একটি চিহ্নিত চক্র সব সময় সোচ্চার থাকে। এটাওেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। আমাকে তারা জানায় না এবং বলেও না কারণ আমি এসব অপকর্ম প্রশ্রয় দিই না। বিষয়টি থানা পুলিশ জেনেছে আর অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি সবারই কাম্য। 

ঘটনার বিষয়ে চাটমোহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেখ নাসীর উদ্দিন জানান, অভিযুক্ত সাত্তার পলাতক রয়েছে। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। সালিস বৈঠক থেকে এক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা