kalerkantho

শনিবার । ১৮ জানুয়ারি ২০২০। ৪ মাঘ ১৪২৬। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

হাতীবান্ধায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম, আটক ৪

হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৬:০৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাতীবান্ধায় মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীকে কুপিয়ে জখম, আটক ৪

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় আওয়ামী লীগ নেত্রীর নির্দেশে মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার রহমানের স্ত্রী জুলেখা বেগমকে কুপিয়ে জখম করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেত্রী আমিনা বেগম ও তার মেয়ে সাদিয়া আফরিন এবং তার নাতনি নদীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আজ রবিবার দুপুরে আওয়ামী লীগ নেত্রী আমিনা বেগম, তারা মেয়ে-নাতনি ও জামাতা আশরাফসহ ৪ জনকে লালমনিরহাট আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ। শনিবার রাতে উপজেলার দক্ষিণ গড্ডিমারী গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে।

পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, লিজকৃত পুকুর দখলে নেয়ার চেষ্টা ও টিনের বেড়া ভাঙচুরের অভিযোগে হাতীবান্ধা থানায় মামলা দায়ের করেন মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার রহমান। ওই মামলায় শনিবার রাতে ডাউবাড়ি ইউনিয়ন মহিলা আওয়ামী লীগ সভানেত্রী আমিনা বেগমের জামাতা ও দক্ষিণ গড্ডিমারী এলাকার বাসিন্দা আশরাফ আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর ঘণ্টাখানেক পর নিজ বাড়ি থেকে প্রতিবেশীর বাড়িতে যাচ্ছিলেন জুলেখা বেগম। পথিমধ্যে তাকে গতিরোধ করে আওয়ামী লীগ নেত্রী আমিনা বেগম ও তার মেয়ে সাদিয়া আফরিন এবং নাতনি নদী। এ সময় জুলেখা বেগমকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে পাশে থাকা পুকুরের পানিতে ফেলে দেয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা মতিয়ার কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমার স্ত্রী অল্পের জন্য বেঁচে গেছে। স্থানীয়রা এগিয়ে না আসলে মাকে হত্যা করে মেরে ফেলতো।

হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, এনিয়ে থানায় দুটি মামলা নথিভুক্ত করা হয়েছে। ওই মামলায় গ্রেপ্তারকৃত আমিনা বেগমসহ ৪ জনকে রবিবার লালমনিরহাট আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা