kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ধুঁকছেন বীরাঙ্গনা রওশনা আরা

কাশিয়ানী (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধি   

১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৩:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধুঁকছেন বীরাঙ্গনা রওশনা আরা

বীরাঙ্গানা রওশন আরার খবর রাখে না কেউ! অর্থাভাবে ধুঁকে ধুঁকে মরতে বসেছেন। বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছেন তিনি। বিভিন্ন রোগ তাঁর শরীরে বাসা বেঁধেছে। টাকার অভাবে ভালো কোনো ডাক্তার দেখাতে পারছেন না তিনি।

জানা গেছে, গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের পশ্চিম মাঝিগাতি গ্রামের মৃত মো. মাঝেত মিয়া ছিলেন পেশায় ঘাটের মাঝি। তার বাড়ি ছিল নদীর ঘাটে। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি সেনা তার বাড়ির পাশ দিয়ে যাওয়ার সময়ে মাঝেত মিয়ার পরিবারের লোকজন অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়। সে সময়ে এই বীরাঙ্গানা হারান তার সম্ভ্রম। মো. মাঝেত মিয়ার মৃত্যূর পরে স্ত্রী রওশন আরা বেগম ছেলে জালিম, আলিম এবং মেয়ে রহিমনকে নিয়ে কোনোরকমে দিন পার করে। অভাবের যন্ত্রণায় অবশেষে ভিক্ষাবৃত্তিতে নামেন।

কাশিয়ানী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নিজামুল আলম মোরাদ সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল লতিফের মাধ্যমে তাঁকে একটি ভবন ও ভাতা করে দেন। বিধবা মেয়েকে নিয়ে বেশ চলছিল। বর্তমানে তিনি বার্ধক্য এবং নানান রোগে আক্রান্ত হয়ে বিছানায় পড়ে আছেন। টাকার অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেন না। মেয়ে রহিমনের সাথে কথা হলে সে জানায়, ভাতার টাকায় কোনো রকমে সংসার চলে। চিকিৎসা করানোর টাকা জোগাড় করতে পারছি না। তাই ভালো কোনো ডাক্তার দেখাতে পারছি না। কোনো সহযোগিতাও পাচ্ছি না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা