kalerkantho

রবিবার । ১৯ জানুয়ারি ২০২০। ৫ মাঘ ১৪২৬। ২২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ফতেয়াবাদে বিদ্যালয়ের জায়গা দখল করে গার্মেন্টস নির্মাণে বিক্ষোভ

হাটহাজারী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:২৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ফতেয়াবাদে বিদ্যালয়ের জায়গা দখল করে গার্মেন্টস নির্মাণে বিক্ষোভ

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ফতেয়াবাদে বৃহস্পতিবার মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফতেয়াবাদ রামকৃষ্ণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফতেয়াবাদ মহাকালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ফতেয়াবাদ মহাকালি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঝ বরাবর পুকুর ভরাট ও স্কুলের জায়গা দখল পূর্বক গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি করার প্রতিবাদে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

এলাকাবাসী, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদ শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত থেকে বিক্ষোভ মিছিল মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন।

সমাবেশ থেকে বক্তারা বলেছেন, বর্তমান সরকার ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে শিক্ষা বান্ধব কর্মসূচির মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। শিক্ষাখাতকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিচ্ছে, ঠিক সে মূহুর্তে একটি মহল উল্লেখিত তিনটি শতবর্ষী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংলগ্ন এলাকায় গার্মেন্টস ফ্যাক্টরি প্রতিষ্ঠার উদ্যেগ গ্রহণ করে শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট করার পাঁয়তারা করছে। এলাকার কোনো বিবেকবান শিক্ষানুরাগী সচেতন লোক এ অবস্থা মেনে নিতে পারে না। অবিলম্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এলাকায় গার্মেন্টস শিল্প কারখানা প্রতিষ্ঠা বন্ধ করে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে হবে।

কর্মসূচি থেকে অবিলম্বে এ কারখানা বন্ধ করা না হলে এলাকাবাসী বৃহত্তর কর্মসূচি ঘোষণা করবে বলে জানান।

ফতেয়াবাদ রামকৃষ্ণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সৌমেন চৌধুরী সুমনের সভাপতিত্বে এবং কৃষ্ণ বণিকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন ভাস্কর্য প্রফেসর আলোক রায়।

সভায় অন্যান্যের বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক শ্রীমান ঘোষ, মহাকালি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুনীল কান্তি দে, প্রধান শিক্ষক শর্মিলা চৌধুরী, অধ্যাপক বিশ্বনাথ চৌধুরী, ডা. বিকে সরকার, কল্যাণ পাল, অনুপ ঘোষ টিটু, প্রধান শিক্ষক রিংকু দাশ, চৌধুরীহাট বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি মো. ইছহাক, আলমগীর কবির চৌধুরী, বিল্পব চৌধুরী ,রতন ধর,আনন্দ দে, লিটন ধর, নটু সরকার। কর্মসূচির প্রতি একাত্মতা ঘোষণা করেন চিকনদন্ডী ইউপি চেয়ারম্যান হাসান জামান বাচ্চু।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা