kalerkantho

শনিবার । ১৮ জানুয়ারি ২০২০। ৪ মাঘ ১৪২৬। ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

হাতি দিয়ে চাঁদাবাজিতে মাহুত মনির মিয়া, অতিষ্ঠ পথচারী-ব্যবসায়ী

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৮:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাতি দিয়ে চাঁদাবাজিতে মাহুত মনির মিয়া, অতিষ্ঠ পথচারী-ব্যবসায়ী

সিলেটের বিশ্বনাথে বিভিন্ন সড়কসহ বাজার এলাকায় দোকানে দোকানে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি করছেন মাহুত মনির মিয়া (২৮)। বুধবার সকালে হাতির মাহুত উপজেলা সদরের পুরানবাজার ও নতুনবাজার এলাকায় ছোট-বড় যানবাহন থামিয়ে ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান থেকে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি করছেন। দু-একজন দোকানদার টাকা দিতে অস্বীকার করলে না দেওয়া পর্যন্ত নড়ছেন না। অনেক সময় দোকানিরা বাধ্য হয়েই টাকা দিচ্ছে। এই অভিনব কায়দায় প্রতিনিয়ত সড়কে, রাস্তাঘাটে, এমনকি বড় বড় যানবাহন থামিয়ে চাঁদাবাজি চালিয়ে গেলেও দেখার কেউ নেই। ফলে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির কারণে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। 

জানা গেছে, গত পাঁচ-ছয় দিন ধরে উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন এলাকায় একটি হাতি নিয়ে মনির মিয়া নামের এক হাতির মাহুত সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত সড়কের রাস্তার দুই ধারে যেসব দোকানপাট, ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে, সেগুলোতে প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করছেন। ব্যবসায়ী ও পথচারীর কাছ থেকে শত শত টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন হাতির মাহুত।

উপজেলা সদরের ব্যবসায়ী দিলোয়ার মিয়া বলেন, হাতি নিয়ে দোকানের সামনে এসে হুংকার দিয়ে ভয় দেখাচ্ছে, তাতে টাকা না দিয়ে উপায় কী? আর হাতি তো মাহুতের নির্দেশ ছাড়া সাধারণত নড়ে না। মাহুতই হাতিকে ব্যবহার করে চাঁদাবাজি করছে।

উপজেলা সদরের নতুন বাজার বণিক সমিতির সভাপতি শামিম আহমদ বলেন, গত সপ্তাহে একটি হাতি নিয়ে এসে প্রায় প্রতিটি দোকান থেকে চাঁদা তোলা শুরু করে। ফের গতকাল বুধবার সকালে সেই হাতি নিয়ে আবার দোকানিদের কাছ থেকে টাকা আদায় করা হয়। যেভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা আদায় করছে, এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত।

বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা বলেন, বিষয়টি আমাদের কেউ অবহিত করেননি। তবে বাজার এলাকায় পুলিশ প্রেরণ করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলৈ তিনি জানান।   

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা