kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

শ্রীবরদীতে অষ্টকালীন লীলাকীর্তন

রেজাউল করিম বকুল, শ্রীবরদী   

১০ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৫:৫৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শ্রীবরদীতে অষ্টকালীন লীলাকীর্তন

বিশ্বের সকল জীবের শান্তি ও কল্যাণ কামনায় শেরপুরের শ্রীবরদীর শ্রী শ্রী রাধাগোবিন্দ মন্দিরে হরিনাম সংকীর্তন ও অষ্টকালীন লীলাকীর্তন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শ্রী শ্রী রাধাগোবিন্দ মন্দির ও মধ্য বাজার আয়োজিত ৫ দিনব্যাপী এই অনুষ্ঠানে পরিবেশন করা হয় হরিনাম সংকীর্তন ও অষ্টকালীন লীলাকীর্তন। এতে অংশ গ্রহণ করেন দেশের খ্যাতনামা কীর্তন লীলা দল। এসব দলগুলো হচ্ছে খুলনার নব বৃন্দাবন সম্প্রদায়, নেত্রকোনার জয় ভজ বিলাস সম্প্রদায়, সিরাজগঞ্জের গোলাপ বালক সম্প্রদায়, ক্ষ্রামনবাড়িয়ার গুরু দক্ষিণা সম্প্রদায়, গোপালগঞ্জের অষ্টসখী সম্প্রদায় ও পঞ্চগড়ের কৃষ্ণ বলরাম সম্প্রদায়।

শুক্রবার পরিবেশন করা হয় লীলাকীর্তন। লীলাকীর্তন পরিবেশন করেন বগুড়ার শ্রী দুলাল মহন্ত, শ্রীমতি ভানতি রানী সরকার ও জয়পুরহাটের শ্রীমতি চন্দ্র রানী সরকার। এ ধর্মানুষ্ঠানে সনাতন ধর্মালম্বীসহ জাতি, ধর্ম নির্বিশেষে সকল বয়সের শতশত লোকের সমাগম ঘটে। কীর্তনের সময় যতই শেষ হয়ে আসে ততই বাড়তে থাকে ভক্ত ও দর্শকদের সংখ্যা। ভক্তদের ভিড়ে কানায় কানায় জমে ওঠে মন্দির প্রাঙ্গণ। 

আয়োজকরা জানান, কালিযুগে জীবের দুঃখ মোচন ও শান্তি অর্জনের একমাত্র উপায় হরিনাম সংকীর্তন। এটাই সনাতন ধর্মের সার সিদ্ধান্ত। তাই কলির কড়াল গ্রাস থেকে নিষ্কৃতি লাভ করতে ভগবানের অনন্ত প্রেমের অভিপ্লাপ্ত আকুল বাসনায় প্রতিবছরের মতো এবারো শ্রী শ্রী রাধাগোবিন্দ মন্দিরে ১৭তম বার্ষিকী, ৩২ প্রহরব্যাপী শ্রী শ্রী মহানামযজ্ঞানুষ্ঠান, অষ্টকালীন লীলাকীর্তন ও মহাপ্রসাদের আয়োজন করা হয়। এ উপলক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয় নিরাপত্তার ব্যবস্থা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা