kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

পূর্ববিরোধের জের

মোহনগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ আহত ১০

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৯:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মোহনগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় নারীসহ আহত ১০

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে পূর্ব বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের লোকজনের অতর্কিত হামলায় এক নারীসহ অন্ততপক্ষে ১০ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সোহেল মিয়া (৪০) ও রয়েল মিয়া (৩৩) নামে দুই ভাইকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

এ ছাড়াও গুরুতর আহত রেবেকা আক্তার (৬৫), আজাদ মিয়া (৩০) ও স্বাধীন মিয়াকে (৩৫) মোহনগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদেরকে স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

আজ সোমবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার তেতুলিয়া ইউনিয়নের হানবীর গ্রামের আলমাস মিয়াসহ তার লোকজন এ হামলার ঘটনাটি ঘটায়।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার হানবীর গ্রামের আলী উছমানের ছেলে সোহেল মিয়ার সাথে দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের মৃত আমির হোসেনের ছেলে আলমাস মিয়ার এলাকার আধিপত্য বিস্তারসহ  বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। রবিবার রাত আটটার দিকে হানবীর গ্রামের হিলফুল ফুজুল দারুসুন্নাহ্ বালক-বালিকা মাদরাসায় ধর্মসভার আয়োজন করার লক্ষ্যে উক্ত মাদরাসা প্রাঙ্গণে এক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা চলাকালে বিভিন্ন বিষয়াদি নিয়ে আলমাস মিয়া ও আব্দুল খালেক মাস্টারের সাথে সোহেল মিয়া ও শফিকুল ইসলাম চৌধুরীর বাকবিতণ্ডা হয়। এরই জের ধরে সোমবার সকাল আটটার দিকে আলমাস মিয়ার নেতৃত্বে তার লোকজন ধারালো অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাড়ির পাশের হানবীর খাল নামক জলমহালের খলায় গিয়ে সোহেল মিয়াসহ তার লোকজনের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় ধারালো অস্ত্র ও লাঠির আঘাতে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

মোহনগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুল মোতালেব জানান, এ খবর পাওয়ার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে এবং এলাকার পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা