kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

জয়িতা পুরস্কার পেলেন নান্দাইলের রানুয়ারা বেগম

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৭:১২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জয়িতা পুরস্কার পেলেন নান্দাইলের রানুয়ারা বেগম

‘অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারি নারী’ ক্যাটাগরিতে জয়িতা পুরস্কার পেয়েছেন শহীদের স্ত্রী রানুয়ারা বেগম। আজ সোমবার সকালে বেগম রোকেয়া দিবস উপলক্ষে ময়মনসিংহের নান্দাইলের পাঁচজন জয়িতার মধ্যে তিনি একজন নির্বাচিত হয়ে সংবর্ধিত হয়েছেন। স্থানীয় উপজেলা পরিষদ হল রুমে তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রহিম সুজন। প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন।

উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভূমি) মাহমুদা আক্তার, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সারোয়ার হাসান জিটু, মনোয়ারা জুয়েল জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান তাহমিনা বেগম লাভলী ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রাশিদা রহমানসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা।

অন্য জয়িতারা হলেন শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে বাবলী দাস, সফল জননী ইছমত আরা বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করা নারী তাসলিমা বেগম ও সমাজ উন্নয়নে অসমান্য অবদান রাখা মনোয়রা জুয়েল।

জানা যায়, মোছাম্মৎ রানুারা বেগম উপজেলার চারআনি পাড়া গ্রামের বাসিন্দা। তার স্বামী রেজাউল করিম ফরাজী স্বাধীনতা যুদ্ধে পাকবাহিনীর হাতে নির্মমভাবে নিহত হন নেত্রকোনা জেলার দুর্গাপর উপজেলার দুবরাজপুর গ্রামে। সেখানকার বিরিসিরির ভাবনীপুর এলাকায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বধ্যভূমি। সেই তালিকায় নাম রয়েছে শহীদ রেজাইল করিম ফরাজীর। দেশ স্বাধীনের পর তিন সন্তান নিয়ে তিনি বাবার বাড়ি নান্দাইলের চারআনিপাড়া এলাকায় বসবাস শুরু করেন। পরে পরিবার পরিকল্পনা বিভাগে চাকরি নিয়ে জীবনযুদ্ধের হাল ধরেন। ওই নারী সদ্য অবসরে গেছেন।

উল্লেখ্য, কালের কণ্ঠের আঞ্চলিক প্রতিনিধি আলম ফরাজী তাঁর পুত্র।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা