kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

‘চট্টগ্রাম ও ঢাকার উন্নয়ন মানে সারা দেশের উন্নয়ন নয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৯ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০২:৩৪ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



‘চট্টগ্রাম ও ঢাকার উন্নয়ন মানে সারা দেশের উন্নয়ন নয়’

‘আমাদের বিদেশি বিনিয়োগের চেয়ে স্থানীয় বিনিয়োগ বেশি হওয়ায় অর্থনৈতিক ভিত্তি মজবুত। তবে লক্ষ্যে পৌঁছতে হলে বিদেশি বিনিয়োগও দরকার।’ গতকাল রবিবার সকালে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে বিভাগীয় বিনিয়োগ ও ব্যবসার উন্নয়ন সহায়তা কমিটির সঙ্গে মতবিনিময়কালে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিদেশি বিনিয়োগে তিন পার্বত্য জেলা ও কক্সবাজারে সমন্বিত ট্যুরিজম খাতের উন্নয়ন করা গেলে দেশের চেহারা পাল্টে যাবে। বিশ্বের অনেক দেশ এমনটি করেছে। বিদেশিরা নিরাপত্তা ও পলিসি সাপোর্ট চায়।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের শিল্পের সূতিকাগার চট্টগ্রাম। দেশের প্রধান সমুদ্রবন্দর এখানে। আমদানি-রপ্তানির ৯০ শতাংশ এ বন্দর দিয়ে হয়। দেশের প্রধান শিল্প গার্মেন্ট। যখন পোশাক রপ্তানি করা হয়, এ বন্দরে আনতে হয়।

অর্থনৈতিক উন্নয়নে চট্টগ্রাম বন্দরের বড় ভূমিকা রয়েছে। শীর্ষ বন্দরের তালিকায় চট্টগ্রাম বন্দরের অবস্থান আরো এগিয়ে আনতে হবে। বন্দরের লিড টাইম কমাতে হবে। ২০২১ সালে পদ্মা সেতু চালু হলে অর্থনীতির অদৃশ্য হাতে মোংলা, পায়রা সমুদ্রবন্দরের কার্যক্রম বেড়ে যাবে। মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দর হলে লিড টাইম অনেক কমে যাবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা