kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভৈরবে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, দুইজন দগ্ধ

নগদ টাকাসহ ৫ লাখ টাকার ক্ষতি

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:১৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভৈরবে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ, দুইজন দগ্ধ

প্রতীকী ছবি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে একটি বসতবাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ দুইজন দগ্ধ হয়েছেন। শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে উপজেলার শ্রীনগর মধ্যপশ্চিমপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘরে থাকা নগদ আড়াই লাখ টাকাসহ প্রায় ৫ লাখ টাকার মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে গেছে।

জানা যায়, শনিবার সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটে উপজেলার শ্রীনগর গ্রামের মধ্যপশ্চিমপাড়া গ্রামের কবীর হোসেনের বসত বাড়িতে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত ঘটে। পরে তা মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়লে রান্না ঘরে থাকা দুটি গ্যাস সিলিন্ডার বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়। এতে ঘরের আলমারিতে রক্ষিত কবীর হোসেনের ছেলে জয় (১৮) এর সৌদি আরব যাবার জন্য সুদের ওপরে আনা নগদ আড়াই লাখ টাকা ও পাসপোর্টসহ বিভিন্ন মালামাল পুড়ে অন্তত ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত কবীর হোসেন জানান, প্রথমে সন্ধ্যা ৭টা ২০ মিনিটে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় এবং মুহূর্তেই রান্না ঘরের দুটি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন ভয়াবহ রূপ ধারণ করে। পরে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে রাত সাড়ে ৮টায় গ্রামবাসীর সহযোগিতায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় আমার ছেলে জয়সহ আমার বাড়িতে বেড়াতে আসা ভাগিনা হেলাল উদ্দিন গুরুতর আহত হয়।

কবীর হোসেনের আরেক ছেলে নবী হোসেন জানান, আর এক সপ্তাহ পর আমার ছোট ভাই জয় সৌদি আরব যাবে বলে সুদের ওপরে আড়াই লাখ টাকা এনে ঘরের আলমারিতে রাখা হয়েছিল। কিন্তু এ অগ্নিকাণ্ডে নগদ টাকাসহ পাসপোর্ট পুড়ে ছাই হয়ে গেছে এবং আমার ছোট ভাই জয় গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এতে করে আমার ভাইয়ের বিদেশ গমন অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। আমরা এখন নিঃস্ব।

এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে শ্রীনগর ইউপি চেয়ারম্যান সার্জেন্ট আবু তাহের জানান, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হলেও পর পর দুটি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কারণে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ বেড়ে গেছে। এছাড়াও এক সপ্তাহ পরে তার বিদেশ যাওয়ার কথা ছিল। এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুরো পরিবারটির জীবনে ভবাবহ অন্ধকার নেমে আসল।

এ বিষয়ে ভৈরব বাজার ফায়ার সার্ভিসের টিম লিডার মুছা ভূইয়া জানান, অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় আধা ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই। এতে নগদ টাকাসহ আনুমানিক ৫ লাখ টাকার ক্ষতি হলেও অন্তত ১০ লাখ টাকার মালামাল আমরা উদ্ধার করতে পেরেছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা