kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ জানুয়ারি ২০২০। ৭ মাঘ ১৪২৬। ২৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

লক্ষাধিক মুসল্লির সমাগম ইজতেমা ময়দানে

আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে আজ শেষ হচ্ছে জোর ইজতেমা

মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, হাটহাজারী   

৮ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:৩৯ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে আজ শেষ হচ্ছে জোর ইজতেমা

চট্টগ্রামের হাটহাজারীর চারিয়া আঞ্চলিক ইজতেমা মাঠে চলমান জোর ইজতেমার আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে আজ রবিবার (৮ ডিসেম্বর) সকাল ১০টায়। গতরাতে বিষয়টি কালের কণ্ঠকে নিশ্চিত করেছেন ইজতেমার জিম্মাদার হাটহাজারী মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক মুফতী জসিমুদ্দীন।

উল্লেখ্য, হাটহাজারীর চারিয়া গ্রামে তিন দিনের জোর ইজতেমা গত শুক্রবার ৬ ডিসেম্বর বাদ ফজর আম বয়ানের মাধ্যমে শুরু হয়। গতকাল শনিবার ছিল দ্বিতীয় দিন। ১৫টি জেলা থেকে আগত তাবলিগ জামাতের জোরের সাথীদের পাশাপাশি গতকাল দেখা যায় হাটহাজারী রাউজান ফটিকছড়ি তথা চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত লক্ষাধিক মুসল্লির সমাগমে ইজতেমা মাঠ কানায় কানায় ভরে গেছে। ভারত পাকিস্তান থেকে ৮টি জামাতে এসেছে প্রায় দেড় শতাধিক বিদেশি মেহমান।

গতকাল শনিবার ইজতেমা মাঠে বয়ানে কাকরাইল মসজিদের খতিব এবং আলমী শুরার শীর্ষ মুরব্বি আল্লামা হাফেজ জুবায়ের দাঃবা' বলেছেন মানুষের জীবনে সবচেয়ে মূল্যবান হলো শহীদি মৃত্যু, আর মৃত্যুর পর জান্নাত লাভ করা। যেই মানুষের অন্তরে শহীদি মৃত্যুর আকাঙ্খা নেই সে মুনাফিক। 

অথচ আল্লাহর রাস্তায় শহীদি মৃত্যুতে বিনা হিসাবে জান্নাত লাভের গ্যারান্টি থাকা সত্ত্বেও আমরা নিজ ঘরে স্ত্রীর হাতে পানি পান করে মৃত্যু এবং ছেলের কাঁধে ভর করে কবরে যেতে চাই। অথচ এর কোনো ফজিলত নেই, তিনি সর্ব অবস্থায় আল্লাহকে ভয় করার আহবান জানিয়ে বলেছেন আমাদের লক্ষ হওয়া উচিৎ সাহাবায়েকেরামের ঈমান ও একিন হাসেল করা। তিনি হক্কানি উলামায়েকেরামকে মেনে সৎ পথে জীবন যাপন করে নিজেকে আল্লাহর রাস্তায় উৎসর্গ করার আহবান জানান।

তিনি গতকাল বাদ মাগরিব ইজতেমার ময়দানে তিন দিনব্যাপী জোরে ২য় দিনের মোজাকারা করার সময় এই কথা বলেন। উল্লেখ্য, গতকাল শনিবার এই মাজমায় শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমেদ শফি দাঃবাঃ এবং মোজাহিদে মিল্লাত আল্লামা শাহ মুহিববুল্লাহ বাবুনগরীসহ লক্ষ লক্ষ মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

আজ রবিবার আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হতে চলেছে তিন দিনের জোর ইজতেমা। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা