kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ জানুয়ারি ২০২০। ১০ মাঘ ১৪২৬। ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ধুনটে যুবলীগ নেতা সবুর হত্যা মামলা ডিবিতে হস্তান্তর

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২১:০৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ধুনটে যুবলীগ নেতা সবুর হত্যা মামলা ডিবিতে হস্তান্তর

জমিজমা নিয়ে বিরোধের জের ধরে বগুড়ার ধুনট উপজেলা যুবলীগের সদস্য আব্দুস সবুরকে কুপিয়ে (৩৫) হত্যা মামলার তদন্তভার বগুড়া জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আজ শনিবার দুপুরের দিকে ধুনট থানা থেকে এই মামলার যাবতীয় নথিপত্র বগুড়া জেলা গোয়েন্দা শাখা কার্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আব্দুস সবুর পেশায় গবাদিপশুর পল্লী চিকিৎসক। নিহত সবুর উপজেলার নিমগাছি ইউনিয়নের নান্দিয়ারপাড়া গ্রামের আব্দুর রহিম ফকিরের ছেলে। তার সাথে প্রতিবেশী স্কুলশিক্ষক নুরুল ইসলাম ফকির ও তার ভাতিজা নিমগাছি ইউনিয়ন যুবলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসানের জমিজমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ রয়েছে।

এ অবস্থায় ২০ নভেম্বর দুপুর ২টার দিকে আব্দুস সবুর পেশাগত কারণে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। তার বাড়ি থেকে মাত্র ৫০০ মিটার দূরে রাস্তায় পৌঁছলে ঘাতকরা পথরোধ করে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাকে হত্যা করে। ঘটনার পর থেকে হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতরা পলাতক রয়েছে।

এ ঘটনায় নিহত আব্দুস সবুরের স্ত্রী ফাতেমা খাতুন বাদী হয়ে ২২ নভেম্বর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় উপজেলার ফরিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নান্দিয়ারপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলাম ফকির ও তার স্ত্রী মর্জিনা খাতুন এবং ভাতিজা বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা কামরুল হাসানসহ ১৪ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে হত্যাকাণ্ডের ১৭ দিন অতিবাহিত হলেও এই মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। ফলে নিহতের স্বজনদের মাঝে সবুর হত্যা মামলার বিচার না পাওয়া নিয়ে চরম হতাশা বিরাজ করছে।

বগুড়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান বলেন, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এই হত্যা মামলাটি তদন্তের জন্য বগুড়া জেলা গোয়েন্দা শাখার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা