kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা

সকালে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বিকেলে সাড়ে ২৬

পঞ্চগড় প্রতিনিধি   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৭:১৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সকালে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, বিকেলে সাড়ে ২৬

ছবি : কালের কণ্ঠ

দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে শীতের প্রকোপ বাড়তে শুরু করেছে। দিন দিন তাপমাত্রা আরও কমে আসছে। শনিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়, সবোর্চ্চ তাপমাত্রা ছিলো ২৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। 

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্র থেকে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছিল। রাত ও ভোরে তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে আসলেও দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত তা গিয়ে দাঁড়ায় ২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। 

এখন বিকেল গড়াতেই এ জেলায় তাপমাত্রা কমতে থাকে। সন্ধ্যার পর থেকে রাত পর্যন্ত হালকা কুয়াশার সাথে সাথে উত্তরে হিমালয় থেকে ভেসে আসে ঠাণ্ডা বাতাস। রাতে পথঘাটে কুয়াশার জন্য যানবাহন চলতে সমস্যা হয়। মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে আসে। উত্তরের ঠাণ্ডা বাতাসে গা হিম হয়ে আসে। টুপ টুপ করে রাতভর চলে কুয়াশাপাত। লেপ ও কম্বল ছাড়া ঘুমানো যায় না। আবার সকাল ৮টার পর থেকেই কুয়াশা কেটে যায়। ঝলমলে রোদের দেখা মিলে। কিন্তু রাত থেকে সকাল পর্যন্ত অসম্ভব ঠান্ডা অনুভূত হয়। 
শহরের চেয়ে গ্রামাঞ্চলে ঠাণ্ডার প্রকোপ বেশি। এই সময়টিতে নিম্ন আয়ের মানুষদের শীত নিবারণ করতে কষ্ট হয়। অনেকেই রাত কিংবা ভোরে খড়কুটো জ্বালিয়ে উষ্ণতা নেন। এছাড়া শীতের প্রকোপ বাড়তে শুরু করায় জেলার হাসপাতালগুলোতে দিন দিন শীতজনিত রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। 

এদিকে দরিদ্র শীতার্তদের জন্য প্রথম দফায় প্রায় ২১ হাজার শীতবস্ত্র পঞ্চগড়ের পাঁচটি উপজেলার মাধ্যমে বিতরণের প্রক্রিয়া শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। অপরদিকে লেপ তোষক ও নতুন পুরাতন গরম কাপড়ের দোকানে ভিড় বাড়ছে। 

পঞ্চগড় জেলা শহরের রিক্সা চালক শাহজাহান আলী বলেন, দিনের বেলায় শীত তেমন বোঝা যায় না। কিন্তু সন্ধ্যার পর থেকে গরম কাপড় ছাড়া বাইরে বের হওয়া কঠিন। ঠাণ্ডা বাতাসে হাত পা হিম হয়ে আসে। রাত ও সকালে যে ঠান্ডা থাকে তা অস্বাভাবিক। আমাদের মতো অল্প আয়ের মানুষের জন্য রাতে আরামে ঘুমানো কষ্টকর হয়ে পড়েছে।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পূর্বাভাস কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম বলেন, শনিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা তেঁতুলিয়ায় রেকর্ড করা হয়েছে ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ডিসেম্বরের বেশির ভাগ সময় তাপমাত্রা এমনই থাকবে বলে পূর্বাভাস পাওয়া যাচ্ছে।  

পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আব্দুল মান্নান বলেন, এ বছর প্রায় ২১ হাজার শীতবস্ত্র পাওয়া গেছে। তা এরই মধ্যে প্রত্যেক উপজেলায় পাঠানো হয়েছে। প্রত্যেক উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে শীতবস্ত্রগুলো দুস্থ্য শীতার্তদের মাঝে বিতরণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা