kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

কর্ণফুলীতে ওয়াটার বাসে ভ্রমণ করলেন সিটি মেয়র

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০২:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কর্ণফুলীতে ওয়াটার বাসে ভ্রমণ করলেন সিটি মেয়র

কর্ণফুলী নদীতে চালুর অপেক্ষায় থাকা চট্টগ্রামের প্রথম ওয়াটার বাস সার্ভিস ব্যবহার করে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন ২০ মিনিটে নগরীর সদরঘাট থেকে পতেঙ্গা জেটিতে পৌঁছান। এরপর বাসে চড়ে মাত্র তিন মিনিটে তিনি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর টার্মিনালে পৌঁছান। অর্থাত্ মাত্র ২৫ মিনিটে সদরঘাট থেকে নদীপথে বিমানবন্দর পৌঁছান চসিক মেয়র এবং একই পথে তিনি সদরঘাটে ফেরেন।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে দ্রুতগতির ওই নৌযানে ভ্রমণ শেষে এই পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়ে সিটি মেয়র বলেন, ‘আন্তর্জাতিকমানের এ সেবাটি যেমন মানুষের সময় বাঁচাবে, তেমনি শব্দ ও বায়ুদূষণ থেকে যাত্রীদের রক্ষা করবে এবং শহরের রাস্তার ওপর অনেক চাপ কমাতে সাহায্য করবে, যা মানুষের জীবনের গতিধারাকে আরো ত্বরান্বিত করবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘মানুষের মধ্যে একটা ভ্রান্ত ধারণা আছে যে নদীপথকে আমরা একটু ভয়ের চোখে দেখি। আসলে নদীপথ যে সড়কপথ থেকে আরো অনেক বেশি নিরাপদ তা আমাদের বুঝতে হবে।’

চসিক মেয়রের গতকালের ভ্রমণে সঙ্গী ছিলেন রাউজান উপজেলা চেয়ারম্যান এহসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, চট্টগ্রাম ৪১নং ওয়ার্ড কমিশনার সালেহ্ আহমেদ, ফিরিঙ্গিবাজার ওয়ার্ড কমিশনার হাসান মুরাদ বিপ্লব, বাংলাদেশ মেরিন ফিশারিজ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. মশিউর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার সিনিয়র সাংবাদিক কলিম সারওয়ার, চসিকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ও এস এস ট্রেডিংয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. সাব্বাব হোসেন।

চট্টগ্রামে বিমানবন্দরগামী যাত্রীদের কথা বিবেচনায় নিয়ে কর্ণফুলী নদীতে প্রথম চালু হচ্ছে ‘ওয়াটার বাস’। এখন পরীক্ষামূলকভাবে চলাচল করতে থাকা এস এস ট্রেডিংয়ের এ সার্ভিস চলতি মাসের মধ্যেই পুরোদমে চালু করা হবে। চট্টগ্রাম ড্রাইডক জেটিতে নির্মিত ২৫ আসনবিশিষ্ট শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ নৌযানে মাথাপিছু ভাড়া রাখা হচ্ছে ৪০০ টাকা। সার্ভিসটি পরিচালনা করছে এস এস ট্রেডিং। মূলত চট্টগ্রাম শহর থেকে বিমানবন্দরমুখী সড়কের ভয়াবহ যানজট এড়াতে বিকল্প এই পথ চালুর উদ্যোগ নেয় চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা