kalerkantho

সোমবার। ২৭ জানুয়ারি ২০২০। ১৩ মাঘ ১৪২৬। ৩০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

নবীনগরে ২ মিনিটের ফটোসেশনে পালিত হলো আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস!

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১০:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নবীনগরে ২ মিনিটের ফটোসেশনে পালিত হলো আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস!

আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসে একটি বৈষম্যমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠায় সরকারের অঙ্গীকারের কথা পুনর্ব্যক্ত করে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের সম্পর্কে ‘নেতিবাচক মানসিকতা’ পরিহার করার জন্য দেশবাসীর প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ আহ্বানে সাড়া দিয়েছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর। কিন্তু এ উপজেলায় লোক দেখানোর নামে, নামকাওয়াস্তে মাত্র ২ মিনিটেই আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসের অনুষ্ঠান শুধুমাত্র ফটোসেশন করেই সমাপ্ত ঘোষণা করতে দেখা যায়।

জানা যায়, আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস ২০১৯ উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও সমাজসেবা কার্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে বৃহস্পতিবার এক বর্ণাঢ্য র‍্যালির আয়োজন করা হয়। কিন্তু বেলা সাড়ে ১১টার দিকে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলা সমাজ সেবা কার্যালয়ের ১৫/১৬ জন কমর্কতা ও কর্মচারীরা একটি ব্যানার নিয়ে উপজেলা পরিষদের সামনে অবস্থান নেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম সেখানে উপস্থিত হলে শুরু হয় ফটোসেশন। এসময় একাধিক ক্যামেরায় প্রচুর ছবি তোলা হয়। 

কিন্তু র‍্যালি শুরুর প্রাক্কালে ইউএনও'র মোবাইলে একটি ফোন আসলে তিনি তাঁর কার্যালয়ের দিকে চলে যান। এরপর সর্বোচ্চ দুই মিনিট ধরে ব্যানারের পেছনে দাঁড়িয়ে সমাজসেবা কার্যালয়ের স্টাফদের আবারো ফটোসেশন চলে। ফটোসেশন শেষে যখন র‍্যালি শুরু হওয়ার কথা, তখন কিছু বুঝের ওঠার আগেই কর্মচারীদের ব্যানারটি গুটিয়ে নিতে দেখা যায়। এরপর ব্যানারটি বগলদাবা করে সকলে সমাজসেবা কার্যালয়ে চলে যান। দুই মিনিটের মধ্যে শুধুমাত্র ফটোসেশনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবসের অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হলো।

পরে কেন এই লোক দেখানো আয়োজন- এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা মো. পারভেজ আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, আসলে উপজেলা পর্যায়ে আমাদের কোনো বাজেট নেই। তাই ছোট্ট করেই দিবসটি পালন করা হলো।

র‍্যালি না করেই শুধু ফটোসেশন করে দিবস পালন কেন? এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বললেন, এখন তো ফেসবুকের জামানা। তাই সবাই যার যার ছবি ফেসবুকে আপলোড করবে। এতে অনুষ্ঠান পালনের বিষয়টিও দেশবাসী জানতে পারবে।

পরে এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুমের সঙ্গে কথা বলতে গেলে তিনি বাইরে আছেন বলে জানা যায়। তবে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে বারবারই তাঁর ফোনটি ব্যস্ত পাওয়া যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা