kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

তোফায়েল আহমেদ জানালেন

২০২১ সালে ভোলা-বরিশাল ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু হবে

ভোলা প্রতিনিধি   

৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০৫ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



২০২১ সালে ভোলা-বরিশাল ব্রিজের নির্মাণ কাজ শুরু হবে

প্রবীণ রাজনীতিবিদ ও ভোলা ১ আসনের সংসদ তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ভোলা বরিশাল ব্রিজের জায়গা সঠিকভাবে চিহিৃত করা হয়েছে। আমি অত্যন্ত খুশি সঠিক যায়গা নির্ধারণের কারণে। এ ব্রিজ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে হতে চলেছে। ২০২১ সালের মধ্যে ভোলা-বরিশাল ব্রিজের কাজ শুরু হবে এবং ২০২৫ সালের মধ্যে তা শেষ করা যাবে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া লঞ্চঘাট থেকে লাহারহাট হতে যাওয়া ভোলা বরিশাল ব্রিজের যায়গা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এর আগে ভোলা জেলা প্রশাসকের সন্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভায় তোফায়েল আহমেদ ভোলা-বরিশাল ব্রিজ নির্মাণে প্রস্তাবনার অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন। এ সময় ভোলা ৩ আসনের সংসদ নূরনবী চৌধুরী শাওন উপস্তিত ছিলেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, এ ব্রিজ নির্মাণে প্রায় এগারো হাজার কোটি টাকার বেশি খরচ হবে। সম্ভাব্যতা যাচাই শেষে প্রধানমন্ত্রী অনুমোধন দিয়েছেন। সব কিছু ঠিক থাকলে ২০২১ সালের মধ্যে ব্রিজটির নির্মাণ কাজ শুরু করে ২০২৫ সালের মধ্যে শেষ হবে।

তিনি বলেন, সেই দিন আর বেশি দূরে নয়, যে দিন আমরা ভোলা-বরিশাল ব্রিজ দেখতে পাবো। এ ব্রিজের মাধ্যমে আমরা বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ভোলাকে মূল ভূখণ্ডের সাথে মিলিত করতে পারব। এর মাধ্যমে ভোলা হবে একটি শিল্পায়নের জায়গা। এখানে পর্যাপ্ত গ্যাস আছে। এর মাধ্যমে অনেক শিল্প কারখানা ঘরে উঠবে। ভোলা হবে একটি সমৃদ্ধশালী জেলা।

এ সময় সেতুসচিব মো. বেলায়েত হোসেন, ভূমিসচিব মাকসুদুর রহমান পাটওয়ারী, খাদ্যসচিব শাহাবুদ্দিন আহমেদসহ সড়ক ও জনপদের বরিশাল বিভাগীয় প্রকৌশলীসহ একাধিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সেতুসচিব মো. বেলায়েত হোসেন বলেন, ব্রিজটির মোট দৈর্ঘ্য সাড়ে নয় কিলোমিটার। দুটি ব্রিজের মাধ্যমে এর সংযোগ স্থাপন করা হবে। একটি সাড়ে তিন কিলোমিটার ও অপরটি দেড় কিলোমিটার হবে। পদ্মা সেতুর কাজের পরে ভোলা বরিশাল ব্রিজের কাজ শুরু হবে। 

সেতুসচিব আরো বলেন, এ কাজ করার ক্ষমতা সরকারের আছে। ভোলা-বরিশাল ব্রিজ অবশ্যই বাস্তবায়ন হবে। রুপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নের জন্য সেতু বিভাগ থেকে পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার মাধ্যমে এর বাস্তবায়ন করা হবে। তাতে প্রথমেই রাখা হয়েছে ভোলা বরিশাল-ব্রিজ। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ভোলা বরিশাল-ব্রিজের বিষয়ে আন্তরিক আছেন বলে জানান সচিব।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ভোলা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাসুদ আলম সিদ্দিকি, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মমিন টুলু, পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়ছাড়, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম গোলাদার, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লবসহ সরকারি কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা