kalerkantho

বুধবার । ২৯ জানুয়ারি ২০২০। ১৫ মাঘ ১৪২৬। ৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

রোপা আমনে রুপালী স্বপ্ন কৃষকের

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৫ ডিসেম্বর, ২০১৯ ১৯:৫৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রোপা আমনে রুপালী স্বপ্ন কৃষকের

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে রোপা আমন ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে। চাহিদা ও বাজারে দর বেশি থাকায় কৃষকরা লাভবান হবেন বলে আশা করছেন। কম খরচে ও কম সময়ে বেশি ফলন মিলছে বলে এ ধান চাষে ঝুকছেন কৃষকরা। রোপা আমন ও বোরো ধান চাষের মাঝখানে কৃষকরা আরেকটি বাড়তি ফসল ঘরে তুলতে পারছেন।

কৃষি অফিস জানায়, চলতি বছর ভৈরবে রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ২১ হেক্টর। কিন্ত লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি আবাদ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকুলে থাকায় কোন ধরনের পোকা মাকড়ের আক্রমণ না থাকায় বাম্পার ফলন হয়েছে। বর্তমানে এ ধানের বাজার দর  ভাল থাকায় দিনে দিনে এ ধান চাষ বৃদ্ধি পাচ্ছে।
কৃষক জাহের মিয়া বলেন, 'রোপা আমন চাষে কম খরচে বেশি ফলন পাওয়ায় লাভ বেশি।'

কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের জমির উদ্দিন,ফুল মিয়াসহ কৃষকরা জানান, আগে এসব জমিতে নাজিরশাইল,বিরুসহ বিভিন্ন দেশীয় জাতের ধানের চাষ করা হতো। এতে উৎপাদন খরচ ও সময় বেশি লাগতো। আবার ফলন কম হতো। এখন কৃষি অফিসের সহযোগিতা ও পরামর্শে রোপা আমন ধান চাষ করে তারা লাভবান। কারন রোপা আমন চাষে ১ কানি জমিতে ২০/২৫ মণ ধান উৎপন্ন হয়। ৯০ দিনের মধ্যে ফলন পাওয়া যায়। বাজারে এ ধানের চাহিদা থাকায় দর ভালো পাওয়া যায়।  তাই এ ধান চাষে  আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের মাঝে ।

ভৈরব উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো. আলম শরীফ খান বলেন, 'আবহাওয়া অনুকুলে ছিল। আর পোকা মাকড়ের আক্রমণ না থাকায়  বাম্পার ফলন হয়েছে । এ ধান চাষে সার্বিক সহযোগিতা ও পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে রোপা আমন ধান চাষে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে।'

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা