kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

ধামরাইয়ে আওয়ামী লীগের সম্মেলন স্থগিতের পেছনে ষড়যন্ত্র!

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২১:৩২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ধামরাইয়ে আওয়ামী লীগের সম্মেলন স্থগিতের পেছনে ষড়যন্ত্র!

ঢাকার ধামরাইয়ে পৌর ও দুটি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের পূর্ব নির্ধাতির তারিখ ছিল আজ বুধবার। এতে স্থানীয় আওয়ামী লীগ সকল প্রস্তুতি সম্পন্নসহ পূর্ব নির্ধারিত স্থানে মঞ্চ তৈরি করে। কিন্তু আকস্মিকভাবে আয়োজকরা জানতে পারেন তাদের সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। এতে নেতাকর্মীরা চরমভাবে ক্ষুদ্ধ হন।

তারা মনে করছেন স্থগিতের পেছনে সাবেক এমপি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ মালেক ষড়যন্ত্র করেছেন। তবে সাবেক এমপি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ মালেক এ বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে জানান এ প্রতিবেদককে।

তিনি বলেন, আমি যাতে পুনরায় সভাপতি না হতে পারি এবং বিভিন্ন ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যেতে না পারি সব ধরনের ষড়যন্ত্র করেছেন বর্তমান এমপি বেনজীর আহমদ।

বুধবার বিকেল তিনটায় ধামরাই পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন হওয়ার কথা ছিল ইসলাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে। সেখানে পৌর আওয়ামী লীগ মঞ্চ ও প্যান্ডেল তৈরির করে চেয়ার সাজানোর কাজও সম্পন্ন করে। এরই মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে। পরে সেখানে বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে পৌর আওয়ামী লীগ।

পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র গোলাম কবিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা আওয়ামীল লীগের সভাপতি ও স্থানীয় সংসদ সদস্য বেনজীর আহমদ। এ ছাড়া বক্তব্য রাখেন ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শওকত হোসেন শাহিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সাকু, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র গোলাম কবির প্রমুখ।

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন সাকু বলেন, আমাদের এমপি বেনজীর আহমদকে সম্মেলন স্থগিত রাখতে বলেছেন আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এর পেছনে এম এ মালেককে দায়ী করা হয়।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ঢাকা- ২০ আসনের এমপি বেনজীর আহমদ বলেন, আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলনের আগে ধামরাইয়ে বিভিন্ন ইউনিটের সম্মেলন স্থগিত রাখতে বলেছেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি। তাই আজকের সম্মেলন স্থগিত করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২২ নভেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যকরী পরিষদের সভায় বিভিন্ন ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ত্রি-বাষিক সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়। এতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ মালেক ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষর করেছেন। এরই ধারাবাহিকতায় ২৭ নভেম্বর থেকে শুরু ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৬টি ইউনিয়নের মধ্যে ১৩টি ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন সম্পন্ন হয়েছে। এর কোনোটিতেই এম এ মালেক অংশগ্রহণ করেননি। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা