kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

নীলফামারীতে ১৩ বছর পর আওয়ামী লীগের সম্মেলন কাল

নীলফামারী প্রতিনিধি   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২০:১০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নীলফামারীতে ১৩ বছর পর আওয়ামী লীগের সম্মেলন কাল

দীর্ঘ ১৩ বছর পর কাল বৃহস্পতিবার নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষে জেলা শহরের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বরে দলীয় প্রতিক নৌকার আদলে নির্মাণ করা হয়েছে বৃহৎ মঞ্চ। জেলাজুড়ে চলছে ব্যপক প্রচার-প্রচারণা।

শেষ মূহুর্তের প্রচারণার অংশ হিসেবে আজ বুধবার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় নির্মাণাধীন মঞ্চের সামনে। বিভিন্ন গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন সেখানে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান, জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. মনিরুল হাসান শাহ্ প্রমুখ।

এদিকে সম্মেলনকে ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি চললেও নেই কোনো উত্তেজনার তেজ। এর কারণ হিসেবে নেতাকর্মীরা বলছেন, এবারের সম্মেলনে সম্ভাবনা নেই নেতৃত্ব বদলের। ফলে এটি অনেকটাই নিয়ম রক্ষার সম্মেলন। এমন সম্ভাবনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও অনেকে সভাপতি সম্পাদককে জানিয়েছেন আগাম অভিনন্দন। সংবাদ সম্মেলনেও তেমটাই ইঙ্গিত দেন নেতাকর্মীরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ বলেন, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। কাউন্সিলররা আগামীকাল সিদ্ধান্ত দেবেন নেতৃত্বের পরিবর্তন হওয়া না হওয়ার। আর এ কারণেই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক বলেন, ‘সম্মেলন থেকে তারুণ্যে ভরা একটি জেলা কমিটি উপহার দেওয়ার আশা করছি আমরা। যেটি হয়েছে উপজেলাসহ বিভিন্ন ইউনিটের কাউন্সিলে।’

সম্মেলন ঘিরে সভাপতি এবং সাধারণ সম্পাদক পদে একাধিক প্রার্থীর নাম নেই এমন প্রশ্নে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ বলেন, ‘যোগ্য নেতৃত্বের কারণে নেতাকর্মীদের আস্থা রয়েছে আমাদের প্রতি। এ ছাড়া স্থানীয় সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূরের সুশৃঙ্খল নেতৃত্বের কারণে দলীয় কোনো বিভেদ নেই এখানে। এরপরও কাউন্সিলরদের সিদ্ধান্তে কমিটি হবে। আমরা একটি সফল সম্মেলন উপহার দিতে যাচ্ছি।’

ওই সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, উদ্বোধক হিসেবে প্রেসিডিয়াম সদস্য রমেশ চন্দ্র সেন এমপি, প্রধান বক্তা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবীর নানক, বিশেষ অতিথি সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, স্থানীয় সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নূর উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের ১৫ জুলাই জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সে কমিটি কেন্দ্রীয় অনুমোদন পায় ২০১২ সালের ১ জানুয়ারি। এ সময় দেওয়ান কামাল আহমেদ সভাপতি এবং মমতাজুল হক সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এর ১৩ বছর পর কাল বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা