kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

বেপরোয়া গতিতে প্রাণ গেল এএসআই ও শ্যালকের

ত্রিশাল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২০:২০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বেপরোয়া গতিতে প্রাণ গেল এএসআই ও শ্যালকের

ময়মনসিংহের ত্রিশালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে রায়মনি নামকস্থানে সোমবার রাত পৌনে তিনটার দিকে ভালুকাগামী একটি প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিলে পড়ে গিয়ে পুলিশের সদ্য সাময়িক বরখাস্তকৃত এএসআই আমিনুল ইসলাম (৩৫) ও তার শ্যালক জাহিদুল ইসলাম (২২) নিহত হয়। খবর পেয়ে ত্রিশাল ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকর্মীরা নিহতদের লাশ উদ্ধার করে ত্রিশাল থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে। দুর্ঘটনা কবলিত দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া প্রাইভেটকারটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে ময়মনসিংহ থেকে প্রাইভেটকারযোগে এএসআই আমিনুল ইসলাম ও তার শ্যালক জাহিদুল ইসলাম ভালুকার বাসার ফেরার উদ্দেশ্যে রওনা হন। দ্রুতগামী প্রাইভেটকারটি বেপরোয়া গতিতে ত্রিশালের রায়মনি এলাকায় পৌঁছলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের ডিভাইডারে প্রচণ্ড জোরে ধাক্কা লেগে রাস্তার পশ্চিমপাশে বিলে গিয়ে পড়ে। এতে দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া প্রাইভেটকারটি। ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয় দুলাভাই ও শ্যালকের।

পরে ত্রিশাল থানা পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে তাদের মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। দুর্ঘটনা কবলিত দুমড়ে মুচড়ে যাওয়া প্রাইভেটকারটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত এএসআই আমিনুল ইসলাম ঢাকার শনিরআখরা এলাকার কাশেম শিকদারের ছেলে। নিহত শ্যালক জাহিদুল ইসলাম ময়মনসিংহের ভালুকা পৌরশহরের ৭নং ওয়ার্ডের শফিকুল ইসলামের ছেলে।

ওসি আজিজুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা