kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

ভৈরবে ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেপ্তার

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২২:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভৈরবে ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেপ্তার

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে এক মাদরাসাছাত্রীকে ধর্ষণ মামলার পলাতক আসামি ইমন মিয়া নামে ১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ইমন শহরের পঞ্চবটি বউবাজার এলাকার গোলাপ মিয়ার পুত্র বলে জানা গেছে। রবিবার রাতে পুলিশ তাকে ভৈরব রেলওয়ে স্টেশন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে সোমবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ জেল-হাজতে প্রেরণ করেছে।

এর আগে এ মামলার অপর আসামি আশিক (২০) নামে আরেক জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। মামলার প্রধান আসামিসহ এখনো ২ জন অধরা।

পুলিশ ও মামলার এজাহারে জানা যায়, ভৈরবপুর নাটাল টোলপ্লাজা এলাকায় অবস্থিত ভৈরবপুর গ্রামের সাবেক পৌর কাউন্সিলর আবদুল্লাহ আল মামুন কমিশনারের বাড়ির ভাড়াটিয়া হালিমা সাদিয়া মহিলা মাদরাসার ৫ম শ্রেণির এক ছাত্রীর সাথে পঞ্চবটি এলাকার রনির প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের জের ধরে রনি তার প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ৬ জুন রাত সাড়ে দশটার দিকে শহরের ভৈরবপুরে অবস্থিত কাশফুল কিন্ডার গার্টেনের ১টি রুমে আটকে রেখে তার ৩ বন্ধু মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ১ পর্যায়ে মেয়েটি অজ্ঞান হয়ে পড়লে ধর্ষণকারীরা পালিয়ে যায়। পরে জ্ঞান ফিরলে তার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন তাকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়।

এ ঘটনায় মেয়েটির মা বাদী হয়ে পরদিন ভৈরব থানায় রনিকে প্রধান আসামি করে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে গ্রেপ্তারকৃত ইমনের মা পারুল বেগম দাবি করেন, তার পুত্র ও ১ ভাইকে ষড়যন্ত্র করে মামলায় আসামি করা হয়েছে। তারা ঘটনার সাথে জড়িত নয়।

এ বিষয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান জানান, মেডিক্যাল রিপোর্টে একাধিক ব্যক্তি পালাক্রমে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে। তাছাড়া ধর্ষণের ঘটনায় ইমন জড়িত বলে ও তদন্তে প্রমাণ পাওয়া গেছে ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা