kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

সুন্দরগঞ্জে শেষ হলো নারী উদ্যোক্তা পণ্য মেলা

গাইবান্ধা প্রতিনিধি   

২১ নভেম্বর, ২০১৯ ২০:৫৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সুন্দরগঞ্জে শেষ হলো নারী উদ্যোক্তা পণ্য মেলা

গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় দুই দিনব্যাপী নারী উদ্যোক্তা পণ্য মেলা বৃহস্পতিবার বিকেলে শেষ হয়েছে। উপজেলা পরিষদ চত্বরে মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে আয়োজক প্রতিষ্ঠানের উপজেলা সমন্বয়কারী কৃষিবিদ জামাল উদ্দিন সভাপতিত্বে সমাপনি আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সোলেমান আলী।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার আশরাফুজ্জামান সরকার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষ অফিসার মাহমুদ হোসেন মন্ডল, বেলকা মজিদ পাড়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মান্নান আকন্দ, চাচিয়া মীরগঞ্জ সরকারি প্রাথকি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জানাতুল ফেরদৌস, রুমা খাতুন প্রমূখ।

মেলায় ইউনিয়ন অ্যাসোসিয়েশনের ৯টি স্টলসহ মোট ২৬টি স্টলে নারী উদ্যোক্তারা অংশগ্রহণ করেন। মেলায় পুষ্টিকর রান্না প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হয় বেলকা, চন্ডিপুর ও তারাপুর ইউনিয়ন নারী অ্যাসোসিয়েশন এবং নারী উদ্যোক্তা হিসেবে পুরস্কৃত হন কঞ্চিবাড়ী সমন্বিত সবজি খামার, রামজীবন সমন্বিত মৎস্য খামার ও তারাপুর গরু মোটা তাজাকরণ সমন্বিত খামার।

নারী উদ্যোক্তা রোসনা বেগম, রাজিয়া সুলতানা, সুমী রানী ও রাবেয়া খাতুন বলেন, আগে বসতবাড়ির বিভিন্ন জায়গায় লাউ, কুমড়া, শিম, বেগুণ, মুলা, সুপারীসহ বিভিন্ন সবজি চাষ, কিংবা ছোট পরিসরে গবাদী পশু মোটা তাজা করার কাজ করতাম। এখন পরিবারের সম্মতি নিয়ে উদ্যোক্তা হিসেবে বড় আঙ্গিকে কাজে নামতে চাই।

তারা বলেন, একা একা উৎপাদিত পণ্য বা সামগ্রী বিক্রি করা কঠিন ছিল। এখন দলবদ্ধভাবে কাজ করায় জেলার বাইরে বগুড়া, শান্তাহার, রংপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় সবজি বা পণ্য যাচ্ছে। আমরা লাভবান হচ্ছি। পরিবারকে সাহায্য করতে পারছি।

সমন্বয়কারী জামাল উদ্দিন বলেন, এই নারী উদ্যোক্তাদের দেখে অনেক নারী উৎসাহিত হয়ে যোগাযোগ করতে শুরু করেছেন। নারীরা উদ্যোক্তা হিসেবে অনেক যোগ্যতর বলেই আমরা মনে করছি। বেসরকারি সংগঠন এসকেএস ফাউন্ডেশন এই মেলার আয়োজন করে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা