kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

৫০০ টাকার বিবাদ, খুন হলো প্রান্ত

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) প্রতিনিধি   

২১ নভেম্বর, ২০১৯ ১৮:৪৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৫০০ টাকার বিবাদ, খুন হলো প্রান্ত

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে ছোট ভাইয়ের পাওনা ৫০০ টাকা আদায় করতে এসে বড় ভাই প্রান্ত সরকার (২৩) কে গত মঙ্গলবার ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরতর যখম করেছিল ছোট ভাই শান্ত সরকারের বন্ধুরা। চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যায় প্রান্ত। আজ বৃহস্পতিবার প্রান্তর লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে দেওয়া হলে সন্ধ্যায় তাকে দাহ করা হবে বলে পরিবার সূত্রে জানা গেছে। প্রান্ত সরকার নওদা গ্রামের পীজুস কান্তী সরকারের বড় ছেলে। প্রান্ত ও শান্ত পাঁচবিবি পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী বলে জনা গেছে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত রবিবার শান্ত তার বন্ধু হাসান, তানজিল, রিদয়, রিপন, রিমন ও আকাশের কাছে পাওনা ১ হাজার টাকা আদায় করতে বড় ভাই প্রান্তকে নিয়ে বন্ধুদের কাছে গিয়ে টাকা পরিশোধে বাধ্য করে। একদিন পর শান্ত তার এক বন্ধু রিপনের নিকট ৫০০ টাকা ধার নেয়। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রিপন ও রিমন তাদের বন্ধুদের নিয়ে গ্রামের পাশে ছোট যমুনা নদীর ধারে শান্তর বড় ভাই প্রান্তকে ডেকে নিয়ে ছোট ভাইয়ের ধার নেওয়া টাকা ফেরত চাইলে প্রান্তর সঙ্গে তাদের কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে প্রান্তকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে যখম করে চলে যায় ছোট ভাইয়ের বন্ধুরা। গ্রামবাসী প্রান্তকে উদ্ধার করে ওই দিনই জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে অবস্তার অবনতি হওয়ায় বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়। 

চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার সন্ধ্যায় প্রান্ত মারা যায়। এই ঘটনায় প্রান্তর মামা গোপাল সরকার  পাঁচবিবি থানায় মামলা দায়ের করেছে। থানার ওসি মুনছুর রহমান জানান আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা