kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

অবশেষে নবীনগরে নির্মিত হচ্ছে স্মৃতিসৌধ 'স্মৃতি অনির্বাণ'

নির্মাণ ব্যয় ১২ লাখ টাকা, ১৬ ডিসেম্বর উদ্বোধন

নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অবশেষে নবীনগরে নির্মিত হচ্ছে স্মৃতিসৌধ 'স্মৃতি অনির্বাণ'

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠের উত্তর পশ্চিম কোণে অবস্থিত শত শহীদের স্মরণে চিহ্নিত গণকবরটিতে অবশেষে নির্মিত হচ্ছে 'স্মৃতি অনির্বাণ' নামের একটি স্মৃতিসৌধ।

আজ মঙ্গলবার ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিতব্য নান্দনিক ডিজাইনের এই স্মৃতিসৌধের নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়। উপজেলা পরিষদের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির আওতায় ADP'র অর্থায়নে এই স্মৃতিসোধটি নির্মিত হচ্ছে।

এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনির, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জাকির হোসেন সাদেক, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোকারম হোসেন, প্রধান শিক্ষক আবু মোছা, আওয়ামী লীগ নেতা নাছির উদ্দিনসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জানা গেছে, মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে হাইস্কুল মাঠের এই জায়গায় পাক হানাদার ও তাদের এ দেশীয় দোসর রাজাকারেরা শতাধিক লোককে ধরে এনে গুলি করে হত্যা করে। যাদের অধিকাংশই ছিলেন নিরীহ জেলে সম্প্রদায়ের। পরে এদেরকে এই জায়গায় গণ কবর দেওয়া হয়।

দেশ স্বাধীনের পর জায়গাটিকে গণকবর হিসেবে এই চিহ্নিত করা হয়। পরে ২০০০ সালের ২৮ সেপ্টম্বর গণকবরের এই জায়গায় তৎকালীন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য দিলারা হারুন সেখানে 'স্মমৃতি অনির্বাণ' নামে একটি স্মৃতিসৌধ নির্মাণের লক্ষে ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। কিন্তু এরপর প্রায় দুই দশকেও এই গণকবরটির কেউ খবর রাখেনি। এ অবস্থায় চলতি বছরের মার্চ মাসে গণমাধ্যমে অবহেলিত এই গণকবরটির দুর্দশা নিয়ে একাধিক প্রতিবেদন প্রচার করা হয়। এরপরই গণকবরটি পরিদর্শনে ঢাকা থেকে ছুটে আসেন স্থানীয় সংসদ সদস্য এবাদুল করিম বুলবুল।

পরে তিনি গণকবরটির দুর্দশা দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেন। এ সময় ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম গণকবরটিতে একটি নান্দনিক স্মৃতিসৌধ নির্মাণের প্রস্তাব করলে সংসদ সদস্য এবাদুল করিম চলতি বছরের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের আগে সেখানে একটি স্মৃতিসৌধ নির্মাণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম কালের কণ্ঠকে বলেন, আগামী ১৬ ডিসেম্বর এমপি স্যার গণকবরটিতে নির্মিতব্য স্মৃতিসৌধটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা