kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

১৮ দিনেও উদঘাটন হয়নি ময়না দেবনাথের মৃত্যু রহস্য

শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মানববন্ধ

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:৫৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



১৮ দিনেও উদঘাটন হয়নি ময়না দেবনাথের মৃত্যু রহস্য

নীলফামারীতে ১৮ দিনেও উদঘাটন হয়নি জেএসসি পরীক্ষার্থী ময়না দেবনাথের মৃত্যু রহস্য। রহস্যজনক ওই মৃত্যুটিকে পরিকল্পিত হত্যা বলে দাবি করেছেন তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকরা। ওই হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবি করে আজ মঙ্গলবার দুপুরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন করেছে তারা।

ময়নার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গোরগ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে গোরগ্রাম-নীলফামারী সড়ক অবরোধ করে ঘণ্টাব্যাপী ওই কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচিতে ময়নার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ পাশ্ববর্তী গোড়গ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সানরাইজ কিন্ডারগার্টেন ও গ্লাক্সি কিন্ডারগার্টেনের দুই সহস্রাধিক শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও এলাকাবাসী অংশ নেয়। তারা এক কিলোমিটার এলাকায় ওই সড়কের দুই ধারে দাঁড়িয়ে বিচার দাবি করে বিভিন্ন শ্লোগান তোলে। এ সময় যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে সড়কটিতে।

মানববন্ধন শেষে সেখানে অনুষ্ঠিত সমাবেশ গোড়গ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. তরিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে বক্তৃতা দেন গোরগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মো. রেয়াজুল ইসলাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহেদ আলী, গোড়গ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ গোপাল চন্দ্র রায়, কিত্তনিয়াপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতিয়ার রহমান, সানরাইজ কিণ্টারগার্টেনের প্রধান শিক্ষ হামিদুর রহমান, গ্লাক্সি কিন্ডারগার্টেনের প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম, সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী নিশিতা আক্তার প্রমুখ।

বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ‘ময়না দেবনাথকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডের ১৮ দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ মামলায় কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করছে না।

মানববন্ধনে ময়না হত্যার বিচার দাবি করে প্লেকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে ছিলেন তার মা ও বাবা। এ সময় তার বাবা আবুল দেবনাথ বলেন, আমার মেয়েকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। হত্যাকাণ্ডটি আড়াল করতে বাড়ির পাশের একটি ইটভাটার ডোবায় লাশ ফেলে রাখা হয়েছিল। মেয়ে হত্যার বিচার চাই।

ময়নার মা মালতি দেবনাথ বলেন, আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই। পুলিশ চাইলে আমার মেয়ের হত্যাকারীদের ধরতে পারেন।

গোড়গ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের সভাপতি তরিকুল ইসলাম বলেন, জেএসসি পরীক্ষার্থী ময়না একজন মেধাবী শিক্ষার্থী। এবারের পরীক্ষায় সে ভালো ফলাফল করতো। কিন্তু পরীক্ষা শুরুর দিনেই তাকে ঝড়ে পড়তে হলো। এটি একটি হত্যাকাণ্ড। সে এজন স্কাউট সদস্য হিসেবে কখনোই আত্মহত্যা করতে পারে না।

উল্লেখ্য, গোড়গ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজের জেএসসি পরীক্ষার্থী ময়না দেবনাথ গত ১ নভেম্বর সন্ধ্যায় বাড়ির নলকূপে হাতমুখ ধুতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। এরপর ২ নভেম্বর সকালে গোরগ্রাম ইউনিয়নের যুগিপাড়া গ্রামের ইটভাটা সংলগ্ন একটি ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। সে ওই গ্রামের আবুল দেবনাথের মেয়ে। এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে। 

নীলফামারী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোমিনুল ইসলাম বলেন, মামলাটি ইউডি মামলা হলেও সেটি নিয়মিত মামলার মতোই তদন্ত চলছে। আমরা বাদীর সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছি। তিনি কাউকে সন্দেহ করলে আমরা সেটিও গুরুত্বের সঙ্গে দেখবো। এ ছাড়া ময়না তদন্ত প্রতিবেদন এখনও পাওয়া যায়নি। আগামী বৃহস্পতিবার দিতে চেয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে হত্যার আলামত পাওয়া গেলে পুলিশ বাদী হয়ে হত্যা মামলা দায়ের করবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা