kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

'বাল্যবিবাহ ও মাদক রুখতে সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে'

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৯ নভেম্বর, ২০১৯ ১৮:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



'বাল্যবিবাহ ও মাদক রুখতে সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে'

সিরাজগঞ্জ-২ (সদর-কামারখন্দ) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত মুন্না বলেছেন, বাল্যবিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধী। শিক্ষায় সচেতনতার অভাব, দারিদ্রতা, সামাজিক নিরাপত্তার অভাবে সমাজে বাল্যবিবাহের বিস্তার ঘটে। বাল্যবিবাহের কারণে পারিবারিক অশান্তি দেখা দেয় এবং অকাল গর্ভপাত ও মাতৃমৃত্যুর ঝুঁকি বেড়ে যায়। তাই বাল্যবিবাহ ও মাদক রুখতে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে কামারখন্দ উপজেলা মিনি অডিটোরিয়ামে 'বাল্যবিবাহ নিরোধকল্পে কামারখন্দ উপজেলার বিবাহ রেজিস্ট্রার, ধর্মীয় নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গের সঙ্গে মতবিনিময়' সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ডা. হাবিবে মিল্লাত বলেন, দেশজুড়ে বাল্যবিবাহ রুখতে ১৮ বছরের পূর্বে কোনো কন্যা সন্তান এবং ২১ বছরের নিচে কোনো ছেলেসন্তানকে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করা যাবে না। বাল্যবিবাহে জড়িত থাকলে সকল পিতামাতাদের আইনের আওতায় এনে যথাযোগ্য শাস্তির ব্যবস্থা করা উচিৎ। কারণ বাল্যবিবাহ শুধু ব্যক্তিগত ক্ষতি করে না পারিবারিক, সামাজিক, সর্বোপরি রাষ্ট্রীয় ক্ষতিসাধনে সহায়কের ভূমিকা পালন করে। নারী শিক্ষাকে উৎসাহিত করতে এবং বাল্যবিবাহকে নিরুৎসাহিত করতে বর্তমান সরকার ইতিমধ্যে নানা ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যেমন মেয়েদের বৃত্তি প্রদান, ডিগ্রি পর্যন্ত বিনামূল্যে পাঠ্যবই প্রদান, অধিক নারী শিক্ষিকা নিয়োগসহ সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে নির্দিষ্ট কোটা হারে নারীদেরকে নিয়োগ ইত্যাদি।

কামারখন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম শহিদুল্লাহ সবুজ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সম্পা রহমান, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুল ইসলাম, কামারখন্দ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আনোয়ার হোসেন, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. একরামুল হক প্রমুখ। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা