kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

১৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি, বাঁধ কেটে পানি অপসারণচেষ্টা

মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট) প্রতিনিধি   

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ১৭:৩৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি, বাঁধ কেটে পানি অপসারণচেষ্টা

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে চার গ্রামের ১৫ হাজার মানুষ দূষিত পানিতে বন্দি হয়ে পড়েছে। সোমবার সকালে দূষিত পানিবন্দি কয়েক হাজার মানুষ নির্মাণাধীন বেড়িবাঁধ কেটে দূষিত পানি অপসারণের চেষ্টা করে। উপজেলার ফাঁসিয়াতলা গ্রামে বেলা ৮টা থেকে ৩৫/১ পোল্ডারের আড়াই কিলামিটারের মাথায় এ কাজ শুরু করেছে এলাকাবাসী। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের জলোচ্ছ্বাসে নদীর তীরবর্তী আমতলী, পূর্ব বরিশাল, মধ্য বরিশাল ও ফাঁসিয়াতলা গ্রামের প্রায় ১৫ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়ে। স্লুইস গেট না থাকায় খালের পানি পচে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। 

স্থানীয়দের অভিযোগ, ১৯৬২ সাল থেকে এই পয়েন্ট ৩টি স্লুইস গেট ছিল। ১৯৯৮ সালের বেড়িবাধের সময় এখানে একটি গেট রাখা হয়। বর্তমানে চলমান বেড়িবাঁধ নির্মাণের ডিজাইনে কোনো স্লুইস গেট রাখা হয়নি। ফলে জলোচ্ছ্বাসে ঢুকে পড়া পানি এখন স্বাভাবিক জীবনযাপন ব্যাহত করছে। ভুক্তভোগী এলাকার শতশত লোক আজ ফাঁসিয়াতলা খালের পানি নদীতে অপসারণের জন্য নির্মাণাধীন বাঁধের কাজ বন্ধ থাকা নিচু এলাকা থেকে কাটতে শুরু করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামান বলেন, জলবদ্ধতার বিষয়ে কেউ জানায়নি তবে আজ এসিল্যান্ডকে পাঠিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পানি উন্নয়ন বোর্ড খুলনার নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আশরাফুল আলম বলেন, অনুমোদিত ডিজাইন অনুসারে বেডিবাঁধের কাজ চলছে। জলাবদ্ধতার বিষয়ে কেউ জানায়নি। সরেজমিনে দেখে জনভোগান্তি লাঘবে যা করা দরকার তাই করা হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা