kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

সলঙ্গায় হত্যাচেষ্টা মামলায় কারাগারে বেরোবি ছাত্রলীগ নেতা

বেরোবি প্রতিনিধি   

১৮ নভেম্বর, ২০১৯ ১৪:৪৬ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সলঙ্গায় হত্যাচেষ্টা মামলায় কারাগারে বেরোবি ছাত্রলীগ নেতা

সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের এক নেতার গলায় ক্ষুর চালানোর অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) ছাত্রলীগ নেতা জুয়েল আহমেদকে কারাগারে পাঠিয়েছেন সিরাজগঞ্জের একটি আদালত।

আজ রবিবার জুয়েল আহমেদ আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত ৩০ মে আম পাড়াকে কেন্দ্র করে সলংগা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক তরিকুল ইসরাম তোতার সাথে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জুয়েল আহমেদের কথা কাটকাটি হয়। এর জের ধরে ওইদিন সন্ধ্যায় সলঙ্গা ইউনিয়নের চৌবিলা (৮নম্বর ওয়ার্ড) আওয়ামী লীগের ইফতার মাহফিলে অংশগ্রহণ করা আওয়ামী লীগ নেতা তারিকুলকে ফোন করে ডেকে নিয়ে কোনোকিছু বুঝে ওঠার আগেই ছুরি দিয়ে গলায় আঘাত করে পালিয়ে যান জুয়েল। পরে তাকে আহত অবস্থায় স্থানীয়রা উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ভর্তি করা হয়।

তারিকুল ইসলাম (তোতা) সলঙ্গা ইউনিয়নের চৌবিলা কাঁচারীপাড়া গ্রামের মকুল হোসেনের ছেলে এবং ছাত্রলীগ নেতা জুয়েল আহম্মেদ মহল্লার জিল্লার রহমানের ছেলে।

এ ঘটনায় ২ জুন সলঙ্গা থানায় জুয়েল আহম্মেদকে প্রধান আসামি করে হত্যাচেষ্টার একটি মামলা দায়ের করেন তরিকুলের বাবা মকুল হোসেন।

মামলার পর জামিন পান জুয়েল আহম্মেদ। গত সেপ্টেম্বর মাসে তার জামিন আবেদন বাতিল করলে পলাতক থাকেন জুয়েল। গত রবিবার জুয়েল আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করলে আদালত তা নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়ে দেন।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতা তরিকুল ইসলাম তোতা বলেন, আমাকে দিবালোকে হত্যার চেষ্টা করেছে জুয়েল। আমি নিশ্চিত মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছি। আদালত তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করায় আমি খুশি। এখন আমি সুবিচার প্রত্যাশা করি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সলঙ্গা থানার উপ-পরিদর্শক তানভীর সবুজ বলেন, ওই ঘটনায় মামলা দায়েরের পর তদন্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে সলঙ্গা ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হাসান শাহিন জানান, চৌবিলা ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ইফতার মাহফিল থেকে তারিকুল ইসলামকে ফোন করে ডেকে নিয়ে জুয়েল আহম্মেদ পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে গলায় ছুরি আঘাত করে। আমরা এগিয়ে আসলে জুয়েল ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়।

তিনি অভিযোগ করেন, জুয়েল ছাত্রলীগে অনুপ্রবেশকৃত। তার পরিবারের সবাই জামায়াতের রাজনীতির সাথে জাড়িত। ২০১৮ জাতীয় নির্বাচনের ক্যাম্প জগৎজীবনপুরে জুয়েলের চাচা জহুরুল হাসান জামায়াতের রোকনের নেতৃত্বে ভাঙচুর চালায় এবং তার চাচার নামে থানায় হরতাল নাশকতার মামলা রয়েছে।

এ বিষয়ে তারিকুলের বাবা ও মামলার বাদী মকবুল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমার ছেলে আ’লীগ করে, এজন্য তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দেশ্যে ছুরি দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। আমরা এর উপযুক্ত বিচার চাই।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা