kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

প্রেমে বাধা, অভিমান করে স্কুলছাত্রীর আত্মহনন

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ১৭:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেমে বাধা, অভিমান করে স্কুলছাত্রীর আত্মহনন

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে প্রেমে বাধা দেওয়ায় বাবার সাথে অভিমান করে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে এক স্কুলছাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার রাতে উপজেলার সরিষা ইউনিয়নের কাছিমপুর গ্রামে। আজ রবিবার সকালে তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্র ও পুলিশ জানায়, ওই গ্রামের মজিবুর রহমানের মেয়ে মিতু আক্তার (১৪) স্থানীয় কাছিমপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে সপ্তম শ্রেণিতে পড়তো। ভালুকবের নয়াপড়া গ্রামের সুমন নামে এক কিশোরের সাথে বেশ কয়েক মাস ধরে তার প্রেমের সর্ম্পক গড়ে ওঠে। এ নিয়ে মিতুর পরিবার এই প্রেমের সর্ম্পক কোনোভাবেই মেনে নিতে পারেনি। এ অবস্থায় বেশ কয়েকবার মেয়েকে বিদ্যালয়ে যাওয়া বন্ধ করে দেওয়া হয়। এতেও থেমে থাকেনি তাদের সর্ম্পক। গতকাল শনিবার সন্ধ্যার পর সুমন মিতুর সাথে দেখা করতে তার বাড়িতে আসে। এ ঘটনা টের পেয়ে মিতুর বাবা সুমনকে ভয় দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়। এ সময় সুমনের একটি মোবাইল ফোন ফেলে রেখে যায়। ফোনটি উদ্ধার করে মিতুর বাবা মজিবুর রহমান ভেঙে ফেলে মেয়েকে শাসন করেন। এক পর্যায়ে মিতু কান্নাকাটি করে বাবার সাথে অভিমান করে বসত ঘরের একটি কক্ষে গিয়ে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়।

মিতুর চাচা বলেন, আমরা ভেবেছি মিতু হয়তো রাগ করে দরজা বন্ধ করেছে। পরে রাত ১২টার দিকে কোনো ধরনের সাড়া শব্দ না পেয়ে ওই কক্ষের ফাঁক দিয়ে উকি দিয়ে দেখি ও আত্মহত্যা করেছে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক শাওন চক্রবর্তী জানান, মৃত্যুটি রহস্যজনক হওয়ায় ময়না তদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা