kalerkantho

সোমবার । ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ১ পোষ ১৪২৬। ১৮ রবিউস সানি                         

কক্সবাজারে প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ শুরু

রামুর কানা রাজার সুড়ঙ্গ পর্যটকদের আকর্ষণ করবে

বিশেষ প্রতিনিধি, কক্সবাজার   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:০৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রামুর কানা রাজার সুড়ঙ্গ পর্যটকদের আকর্ষণ করবে

ছবি: কালের কণ্ঠ

কক্সবাজারের চার উপজেলায় প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকালে রামু উপজেলার কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের উখিয়ারঘোনা এলাকায় ঐতিহাসিক কানা রাজার সুড়ঙ্গ বা আঁধার মানিক গুহা চত্বরে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের যুগ্ম সচিব মো. জাকির হোসেন।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের উদ্যোগে প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ পরিচালনা করা হচ্ছে। রামু, উখিয়া, মহেশখালী ও কক্সবাজার সদর উপজেলায় মাসব্যাপী চলবে এ কার্যক্রম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে যুগ্ম সচিব মো. জাকির হোসেন বলেন, ইতিহাস-ঐতিহ্যে ভরপুর পর্যটন শহর কক্সবাজারের রামু উপজেলা হাজার বছরের ঐতিহ্যে সমৃদ্ধ জনপদ। প্রাকৃতিক ও প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এবং রাজা-বাদশাদের আবাসস্থল হওয়ায় এ উপজেলার গুরুত্ব ও পরিচিতি দেশজুড়ে। রামুর অনেক এলাকার নামের সঙ্গে মিশে আছে সমৃদ্ধ ইতিহাস।

ঐতিহাসিক এসব প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন এখনো রামুতে দৃশ্যমান। কানা রাজার সুড়ঙ্গ যার অন্যতম। ইতিহাস-ঐতিহ্য জানতে হবে এবং ঐতিহাসিক নিদর্শন সংরক্ষণ করতে হবে। রামুর কানা রাজার সুড়ঙ্গ যথাযথ সংরক্ষণের মাধ্যমে এর ইতিহাস তুলে ধরতে পারলে এখানে জ্ঞান পিপাসুদের পাশাপাশি পর্যটকদের আকর্ষণও বাড়বে।

দেশের বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ঐতিহাসিক এ নিদর্শন সম্পর্কে জানাতে হবে। তিনি কানা রাজার সুড়ঙ্গে যাতায়াতের সড়ক পাকাকরণ করার আশ্বাস দেন এবং কক্সবাজারের বাদ পড়া আরো ৪ উপজেলায় প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের আহবান জানান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ড. মো. আতাউর রহমান বলেন, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. হান্নান মিয়ার নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা এ জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ শুরু করেছি। কক্সবাজার জেলার সদর, রামু, উখিয়া ও মহেশখালী উপজেলায় ২০১৯-২০ অর্থ বছরে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতাধিন প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের উদ্যোগে মাসব্যাপী প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ পরিচালনা করা হবে।

অনুষ্ঠানে প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান টিমের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফিল্ড অফিসার মো. শাহীন আলম, সদস্যদের মধ্যে সহকারী কাস্টোডিয়ান মো. হাফিজুর রহমান, গবেষণা সহকারি মো. ওমর ফারুক, সার্ভেয়ার চাইথোয়াই মারমা, পটারী রের্কডার ওমর ফারুক ও লক্ষণ দাস উপস্থিত ছিলেন।

প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ড. মো. আতাউর রহমানের নেতৃত্বে প্রাক জরিপ দল রামুর কাউয়ারখোপ ইউনিয়নে ঐতিহাসিক কানা রাজার সুড়ঙ্গ বা আঁধার মানিক ছাড়াও ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের অফিসেরচর এলাকার ঐতিহাসিক লামার পাড়া বৌদ্ধ বিহার ও ক্যাপ্টেন হিরাম কক্সের ডাক বাংলো পরিদর্শন করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা