kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

পীরগাছায় লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম

পীরগাছা (রংপুর) প্রতিনিধি   

১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ১৮:৫৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পীরগাছায় লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম

রংপুরের পীরগাছায় বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় লাফিয়ে বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। মাত্র দুই দিনের ব্যবধানে আজ শুক্রবার পেঁয়াজের দাম বেড়েছে কেজিতে ৬০ টাকা। দুইদিন আগেও প্রতি কেজি দেশীয় পেঁয়াজ ১৮০ থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। শুক্রবার তা ২৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। হঠাৎ করে আবারো পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় ক্রেতারা চরম বিপাকে পড়েছেন। 

আজ শুক্রবার উপজেলার বিভিন্ন বাজারে গিয়ে দেখা যায়, দেশীয় পেঁয়াজ ২৫০ থেকে ২৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রির ঘটনায় একাধিক বাজারে দাম নিয়ে ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে বাক-বিতণ্ডার ঘটনাও ঘটেছে। বাজার মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের বাজারগুলোতে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রির অভিযোগ ওঠেছে।

পীরগাছা বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা সাহা মিয়া বলেন, বাজারে কোনো ধরনের নিয়ন্ত্রণ বা মনিটরিং না থাকায় প্রতিদিনই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। ফলে আমার মতো সাধারণ ক্রেতাদের বিপাকে পড়তে হচ্ছে।

দেবী চৌধুরাণী হাটে বাজার করতে আসা আতাউর রহমান বলেন, পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় চরম বিপাকে পড়েছি। চাহিদা এক কেজি থাকলেও সামান্য পেঁয়াজ কিনতে বাধ্য হলাম।

শুধু মিজানুর রহমান নয়, অনেক ক্রেতাকে দোকানে এসে পেঁয়াজের দাম শুনে চলে যেতে দেখা গেছে। ক্রেতা ও বিক্রেতারা বলছেন, এভাবে চলতে থাকলে যেকোনো সময়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজ তিন শত টাকা ছাড়িয়ে যাবে।

উপজেলার কান্দির হাটের খুচরা ব্যবসায়ী রেজাউল করিম বলেন, প্রতি দিন আমার সাড়ে তিনশ থেকে চারশ কেজি পেঁয়াজের চাহিদা কিন্ত আজ মোকাম থেকে মাত্র ৫০ কেজি পেঁয়াজ আনতে পেরেছি। 

ভোলানাথ হাটের খুচরা ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান বলেন, আড়তে পাঁচ কেজি পেঁয়াজ ১২০০ টাকায় বিক্রি করছে। তারা চাহিদা মতো পেঁয়াজ দিচ্ছে না। বেশি দামে পেঁয়াজ কিনে ক্রেতাদের কাছে ২৬০ টাকার কমে পেঁয়াজ বিক্রি করা সম্ভব হচ্ছে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা