kalerkantho

শনিবার । ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৬ রবিউস সানি               

সাড়ে ৩ কেজি স্বর্ণসহ আটক ৩

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি   

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:০৬ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাড়ে ৩ কেজি স্বর্ণসহ আটক ৩

ভারতে পাচারকালে বুধবার বেনাপোল এলাকায় আটক করা হয়েছে সাড়ে তিন কেজি স্বর্ণের বার। বেনাপোল পোর্ট থানার আমড়াখালী, দৌলতপুর ও ঘিবা সীমান্তে পৃথক অভিযান চালিয়ে বিজিবি সদস্যরা এসব স্বর্ণের চালান আটক করেন। এ সময় গ্রেপ্তার করা হয়েছে এক নারীসহ তিনজনকে।

যশোর ৪৯ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর নজরুল ইসলাম জানান, বেনাপোল হয়ে সীমান্ত পথে বিপুল পরিমান স্বর্ণ ভারতে পাচার হয়ে যাচ্ছে এমন সংবাদ ছিল। বিজিবির একটি টহলদল বুধবার সকাল ৮টার দিকে আমড়াখালি বিজিবি চেকপোস্টে রবিউল ইসলাম (৩৬) নামে একজনকে আটক করে। তার প্যান্টের বেল্টের মধ্যে অভিনব কায়দায় রাখা ছিল ৮ পিস স্বর্ণের বার। রবিউলের বাড়ি যশোরের আর এন রোড এলাকায়। তার পিতার নাম মনির উদ্দিন।

একই ব্যাটালিয়নের ঘিবা বিজিবি ক্যাম্পের হাবিলদার ওবায়দুল হকের নেতৃত্বে একটি টহল দল আটক করেছে দিলীপ বিশ্বাস (৩৫) নামের ব্যক্তিকে। ঘিবা সীমান্তের মাঠ থেকে তাকে আটকের পর শরীর তল্লাশি করে পাওয়া গেছে প্রায় দুই কেজি ওজনের দুটি স্বর্ণের বার। সেগুলো ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাচ্ছিলেন বলে দিলীপ স্বীকার করেছেন। আটক দিলিপ বেনাপোলের ঘিবা গ্রামের নরেন বিশ্বাসের ছেলে।
খুলনা ২১ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল মোহাম্মদ মনজুর-ই-এলাহী জানান, বেনাপোলের দৌলতপুর ক্যাম্প কমান্ডার সুবেদার মশিয়ার রহমানের নেতৃত্বে বিজিবির একটি টহলদল আটক করেছে মনিরা খাতুন (২৫) নামে এক নারীকে। দৌলতপুর সীমান্তের সড়ক থেকে তাকে আটকের পর শরীর তল্লাশি করে পাওয়া গেছে ছয়টি স্বর্ণের বার। আটক মনিরা খাতুন বেনাপোলের বড়আঁচড়া গ্রামের রমজান আলীর স্ত্রী।

সূত্র জানায়, পৃথক অভিযানে আটক করা ১৬ পিস স্বর্ণের ওজন ৩ কেজি ৪৮৫ গ্রাম। যার আনুমানিক মূল্য এক কোটি ৭৫ লাখ টাকা।
আটক রবিউল ইসলাম, দিলীপ বিশ্বাস ও মনিরা খাতুন মূলত চোরাচালান চক্রের 'ক্যারিয়ার'। তারা দীর্ঘদিন ধরে অর্থের বিনিময়ে ভারতে সোনা পাচার করে আসছিলেন। এ ব্যাপারে বেনাপোল পোর্ট থানায় তিনটি পৃথক মামলা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা