kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি করে উত্তীর্ণ

শাবিপ্রবিতে ভর্তি হতে এসে আটক ৬ ভর্তীচ্ছু

শাবিপ্রবি প্রতিনিধি   

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৮:৪০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শাবিপ্রবিতে ভর্তি হতে এসে আটক ৬ ভর্তীচ্ছু

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক ১ম বর্ষ ১ম সেমিস্টারে ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতির মাধ্যমে উত্তীর্ণ হয়ে ভর্তি হতে আসা পাঁচ শিক্ষার্থীকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এ ছাড়া ভর্তি জালিয়াতিতে তাদেরকে সহযোগিতা করায় ফুড ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টি টেকনোলজি বিভাগের প্রথম বর্ষের সামিউল ইসলাম কৌশিক নামের এক শিক্ষার্থীকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার বিজ্ঞান অনুষদ অধীভুক্ত ‘বি-১’ ইউনিটে ভর্তি হতে আসলে ছয় জনকে আটক করা হয় পরবর্তীতে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে আনুমানিক রাত ১১টার দিকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আটকৃতরা হলেন- বগুড়া জেলার বৃন্দাবন পাড়ার আরিফ খান রাফি, শাহজানপুর উপজেলার মাঝিরা গ্রামের শাকিদুল ইসলাম, রহিমাবাদ গ্রামের আবিদ মুর্শেদ, বটতলার জাহিদ হাসান এবং রংপুর জেলার পাকমোড়ের রিয়াদুল জান্নাত।

প্রক্টর অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমদ জানান, এরা সবাই ৭৫ নম্বর সেট কোডের প্রশ্নপত্রের উত্তর করেছিল। এদের সেট কোডে ওভার রাইটিং হওয়ায় এবং নম্বর কাছাকাছি হওয়ায় আমরা তাদেরকে শনাক্ত করে রাখি এবং ভর্তি হতে আসলে তাদের আটক করি। পরবর্তীতে জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে জালিয়াতির প্রমাণ পাওয়ায় তাদেরকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয় ও তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে গত ২৬ অক্টোবর বিকাল আড়াইটায় ‘বি-১’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ক্যালকুলেটরের মাধ্যমে ডিজিটাল জালিয়াতির সিলেট নগরী চারটি পৃথক কেন্দ্র থেকে বগুড়া থেকে পরীক্ষা দিতে আসা আহসান আলী, ইব্রাহিম খলিল জীবন, মাহমুদুল হাসান, সাদ মো. শাহেল এবং ময়মনসিংহের মোহাইমিনুল ইসলাম খানকে আটক করা হয়েছিল। তারাও ৭৫ নম্বর সেট কোডের প্রশ্নপত্রের উত্তর করেছিল বলে জানা যায়। তাদের বিরুদ্ধে পৃথক চারটি মামলা দায়ের করা হয়েছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা