kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

নেশার টাকা না দেওয়ায় হাতুড়িপেটা, টাকা ছিনতাই

শরণখোলা প্রতিনিধি   

১৩ নভেম্বর, ২০১৯ ১৫:১৭ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নেশার টাকা না দেওয়ায় হাতুড়িপেটা, টাকা ছিনতাই

বাগেরহাটের শরণখোলায় নেশার টাকা না দেওয়ায় কবির হাওলাদার (৩৫) নামের এক ব্যবসায়ী প্রতিনিধিকে হাতুড়ি ও টর্চলাইট দিয়ে পিটিয়ে দুই লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে বখাটেরা। হামলার শিকার ওই ব্যক্তি খুলনার কাচামালের পাইকারি ব্যবসায়ী মো. বাচ্চু হাওলাদারের মেসার্স আল্লাহর দান ট্রেডার্সের ম্যানেজার। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নলবুনিয়া এলাকায়। তাকে ওই রাতে উদ্ধার করে শরণখোলা হাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহত কবির খোন্তাকাটা ইউনিয়নের নলবুনিয়া গ্রামের শামছুল হক হাওলাদারের ছেলে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কবির হাওলাদার জানান, নলবুনিয়া গ্রামের সাজ্জাল বাড়ির নাছির সাজ্জালের ছেলে বেল্লাল (৩৫), ইউনুস সাজ্জালের ছেলে মাসুম (২৫) ও মাসুদ (১৮), খালেক সাজ্জালের ছেলে পান্না (৪৬), শাহজাহান হাওলাদারের ছেলে আব্দুল্লাহ (২৫), ফজলু চৌধূরীর ছেলে রহিম (২০) প্রায়ই ভয়-ভীতি দেখিয়ে তার কাছ থেকে নেশা করার জন্য চাঁদা দাবি করে। ঘটনার দিন সন্ধ্যার পরে নলবুনিয়া বাজারে বসে চাঁদার টাকা চাওয়া নিয়ে বখাটেদের সাথে কথাকাটাকাটি হয়। এ সময় তাকে মারধরও করে তারা। পরে রাত ৯টার দিকে ওই বখাটেরা পুনরায় তাকে বাড়ির এলাকা থেকে পার্শ্ববর্তী একটি বাগানে ধরে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে হাতুড়ি ও টর্চলাইট দিয়ে পিটিয়ে অজ্ঞান করে বিবস্ত্র অবস্থায় ফেলে রেখে যায়। এ সময় কবিরের কাছে থাকা উপজেলার বিভিন্ন বাজার থেকে কালেকশনের দুই লাখ টাকা নেশাখোররা নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ব্যবসায়ী বাচ্চু হাওলাদারের চাচা মুক্তিযোদ্ধা আ. জলিল, ইদ্রিস আলী, রাসেল মোল্লা, বাদল হাওলাদারসহ এলাকাবাসী জানান, হামলাকারীরা এলাকায় নানা অপকর্ম করে আসছে। তারা নেশায় আসক্ত। কবিরকে ধরে নিয়ে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে একটি বাগানে ফেলে রেখে যায়। রাতে বহু খোঁজাখুঁজি করে উলঙ্গ অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. রাকিব জানান, ওই বখাটেরা বিভিন্ন সময় নেশাগ্রস্ত হয়ে এলাকায় ইফটিজিংসহ বিভিন্ন অপরাধ করে আসছে। তাদের বখাটেপনার কারণে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না। শরণখোলা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল্লাহ আল সাইদ বলেন, বিষয়টি মৌখিকভাবে শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা