kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

নাটোরের নৌকা পাগল নুরু

নাটোর প্রতিনিধি    

১২ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:৪৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নাটোরের নৌকা পাগল নুরু

নৌকা পাগল এক মানুষের নাম নুরুল ইসলাম নুরু। যেখানেই নির্বাচন নৌকা সাথে নিয়ে পাড়ি জমিয়েছেন সেখানেই। আর্থিক সামর্থ্য না থাকলেও রয়েছে মনের সামর্থ্য। রয়েছে দল ও দলের প্রতীক নৌকার প্রতি অকুণ্ঠ ভালবাসা। রয়েছে দলীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি অঘাধ আস্থা। নাটোর শহরের চকবৈদ্যনাথ এলাকার ক্ষুদ্র চামড়া ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম নুরু ছিলেন নাটোর পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর। ছিলেন ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। এখন আর কোনো পদ। তিনি এখন দলের একজন সাধারণ সদস্য।

কিন্তু তারপরও যেখানেই নৌকা সমর্থক কোনো মানুষের বিপদের কথা শুনতে পান ছুটে যান একজন নেতার ভূমিকা নিয়ে। কন কনে শীত অথবা ঝড়ো আবহাওয়া দিন, কিংবা রাত নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ফেলে ছুটে যান বিপদগ্রস্ত আওয়ামী লীগ কর্মী-সমর্থক বা সাধারণ মানুষের কাছে। এলাকায় রয়েছে তার ব্যাপক জনপ্রিয়তা। নৌকা ও দলের প্রতি বাড়তি ভালবাসার কারণে কথিত দলীয় অনেক কর্মীর গোপন সষড়যন্ত্রের শিকার হতে হয় নুরুকে। তারপরেও থেমে নেই তার চলার গতি। নাটোর জেলার স্থানীয় ও সংসদ নির্বাচনসহ সকল নির্বাচনে সবার আগে নৌকা নিয়ে ছুটে চলেন তিনি। গত জাতীয় নির্বাচনে নিজের একমাত্র সম্বল মোটরসাইকেলে নৌকা আর হ্যান্ডমাইক বেঁধে নির্বাচনী গণসংযোগে ছুটে গেছেন গোপালগঞ্জ পর্যন্ত।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী গণসংযোগ করেছেন মোটরসাইকেল নিয়ে। নির্বাচনী গণসংযোগ করেছেন ক্রিকেটার মাশরাফি, সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীসহ কুষ্টিয়া, পাবনা, ঝিনাইদহ, নড়াইল, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, মাদারিপুরসহ বিভিন্ন জেলার আওয়ামী প্রার্থীদের পক্ষে। এ কারণে তার ব্যবসাটিও এখন ধংসের পথে। উচ্চাভিলাস তাড়া করে না নুরুল ইসলাম নুরুকে। এ কারণে নাটোর শহরের গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক এলাকা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দীর্ঘ দায়িত্ব পালন ও ৫ বছর ওয়ার্ড কাউন্সিলর থাকার পরও আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ হতে পারেননি তিনি।

নুরুল ইসলাম নুরু বলেন, তিনি নৌকার তথা বঙ্গবন্ধুর একজন সৈনিক। দলের বিজয় তার বিজয়। তাই যেখানেই নির্বাচন সেখানেই তিনি ঝাপিয়ে পড়েন।

তিনি বলেন, দলের প্রধান শেখ হাসিনার পরিকল্পনা অনুযায়ী প্রকৃত আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন ও সঠিক স্থানে বসালে বা দায়িত্ব পালনের সুযোগ দিলে আগামী ৫০ বছরেরও আওয়ামী লীগকে কেউ পেছনে ফেলতে পারবে না।

কিন্তু দলের তৃণমূলে ঢুকতে শুরু করেছে সুবিধাবাদীরা। দলের অনেক নেতাই মনে করেন, নুরুর মতো নিবেদিত প্রাণ নেতাকর্মীদের বেশি বেশি করে কাজে লাগাতে পারলে তৃণমূলে দলের শক্তি আরো বেড়ে যাবে। অথচ গত ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তাকে দেওয়া হয়নি কোনো পদ। এ নিয়ে তার কোনো আক্ষেপ নেই। তিনি নৌকার জন্য কাজ করে যাবেন এটাই তার সাফল্য।

জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাটোর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শরিফুল ইসলাম রমজান বলেন, নুরুল ইসলাম নুরু নৌকার জন্য নিবেদিত প্রাণ একজন কর্মী। তাকে অবশ্যই দলকে মূল্যায়ন করতে হবে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা