kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

শেখ হাসিনাকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ

শিবপুরে আ. লীগ সভাপতির বিচার দাবিতে মানববন্ধন, জিডি

নরসিংদী প্রতিনিধি   

১১ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৫৫ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



শিবপুরে আ. লীগ সভাপতির বিচার দাবিতে মানববন্ধন, জিডি

নরসিংদীর শিবপুরে পুটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলন হয় গত শুক্রবার। সম্মেলনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ খান দলের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ওই মন্তব্যকে কেন্দ্র করে শিবপুরের আওয়ামী লীগে এখন ব্যাপক উত্তেজনা চলছে। স্থানীয় সংসদ সদস্য জহিরুল হক ভূঞা মোহন এ ঘটনায় হারুনুর রশীদ খানের পদত্যাগ দাবি করেছেন। 

আপত্তিকর ওই মন্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে শিবপুর মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন আওয়ামী লীগের সাত নেতাকর্মী। গতকাল সোমবার সকালে শিবপুর কলেজগেট এলাকায় হারুনুর রশীদ খানের বিচার দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের কয়েক শ নেতাকর্মী।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জানান, পুটিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথি করা হয় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সদরের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম হীরুকে। বিশেষ অতিথি করা হয় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মতিন ভূইয়া, স্থানীয় সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জহিরুল হক ভূঞা মোহন এবং সাবেক সংসদ সদস্য যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সিরাজুল ইসলাম মোল্লাকে। সম্মেলনের উদ্বোধক করা হয় হারুনুর রশীদ খানকে। তবে সম্মেলনে সংসদ সদস্য জহিরুল হক ভূঞা মোহন এবং হারুনুর রশীদ খান ছাড়া আর কেউ উপস্থিত হননি।

নেতাকর্মীরা আরো জানান, সম্মেলনে হারুনুর রশীদের বক্তব্যের পর বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য মোহন। তিনি অনুষ্ঠানে সাবেক সংসদ সদস্য সিরাজুল ইসলামকে বিশেষ অতিথি করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং বলেন, ‘যে লোক নৌকার বিরোধিতা করে দুই-দুইবার জাতীয় সংসদ নির্বাচন করেন তাঁকে কিভাবে বিশেষ অতিথি করা হয়েছে আমি জানতে চাই।’ তাঁর এ বক্তব্যের পর হারুনুর রশীদ আবার মাইক্রোফোন নিয়ে বলেন, দলের কারো বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে এর বিচার করার দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার। সম্মেলনে এসে এসব বলার দরকার কি? হারুনুর রশীদ এ সময় প্রধামন্ত্রীকে উদ্দেশ করে আপত্তিকর মন্তব্য করেন বলেও জানান নেতাকর্মীরা। সেই বক্তব্যের ভিডিও অনেকের হাতে ঘুরছে বলেও দাবি করেন তাঁরা।

এই বক্তব্যের প্রতিবাদে গতকাল সকাল ১০টায় শিবপুর কলেজগেটে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। আগের দিন রবিবার রাতে শিবপুর মডেল থানায় জিডি করেছেন দলের সাত নেতাকর্মী। তাঁরা হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আজিজুর রহমান ভুলু মাস্টার, আবদুল হাই মাস্টার, আলমগীর মৃধা আঙ্গুর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আলম ভূইয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান, দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ পারভেজ ও জেলা যুবলীগের সহসভাপতি জোনায়েদুল ভূঞা জুনু। 

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের মতো দায়িত্বশীল দুটি পদে থেকে তিনি কিভাবে দলের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে এ ধরনের কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেন, তা আমার বোধগম্য হচ্ছে না। তাঁর এই বক্তব্যে শিবপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের অপূরণীয় ক্ষতির আশঙ্কা করছি।’

এ ব্যাপারে সংসদ সদস্য মোহন বলেন, ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির মুখ থেকে দলীয় সভানেত্রীর নামে এ ধরনের মন্তব্য আমরা আশা করিনি। এতে আমিসহ তৃণমূলের নেতাকর্মীরা কষ্ট পেয়েছি, মর্মাহত হয়েছি। আমি তাঁর পদত্যাগের দাবি জানাচ্ছি।’ 

অভিযোগের ব্যাপারে হারুনুর রশীদ খান বলেন, ‘আমি কি পাগল, না উন্মাদ যে প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেব? শেখ হাসিনা আমাদের দলের মালিক। সিরাজ মোল্লাকে নিয়ে যদি এমপির কোনো বিচার থাকে সেটা তাঁর কাছে দিক। দলীয় সম্মেলনে এসে বিশৃঙ্খলা তৈরির জন্য এমপি এই পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। আর এখন যা করছে তা সম্পূর্ণ ষড়যন্ত্র।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা