kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

মানববন্ধনে আসিফ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি   

১১ নভেম্বর, ২০১৯ ২০:৪৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মানববন্ধনে আসিফ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি

কুড়িগ্রামের উলিপুরে আরিফুল ইসলাম আসিফের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে পৌরশহরের চৌরাস্তা মোড়ে উলিপুরের সর্বস্তরের জনগণের ব্যানারে ও বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ সরকার, বণিক সমিতির সভাপতি সৌমেন্দ্র প্রসাদ পাণ্ডে গবা, সাবেক মহিলা কাউন্সিলর মর্জিনা বেগম, বাসদ নেতা সাঈদ আখতার আমীন, সমাজকর্মী আলমগীর হোসেন, ব্যবসায়ী তারা মিয়া, এলাকাবাসী শামীউল ইসলাম শামীম, রতন সরদার প্রমুখ।

এ সময় বক্তারা বলেন, নিরীহ ছেলে আসিফকে যারা গলা কেটে হত্যা করেছে তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। 

উল্লেখ্য, গাজীপুরের শ্রীপুর পৌর এলাকার বহেরারচালা গ্রামের একটি কলাবাগানে আরিফুল ইসলাম আসিফ (২০) যুবকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিনি স্থানীয় জনৈক হেলাল উদ্দিনের বাড়িতে সহকর্মীদের সঙ্গে ভাড়া থেকে মিতালী কারখানায় চাকরি করতেন। দুই মাস পূর্বে নিহত আরিফুল ওই কারখানায় চাকরি নেন। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কারখানা কর্তৃপক্ষ তাকে অক্টোবর মাসের বেতন প্রদান করেন। বেতন নিয়ে কারখানা থেকে বের হওয়ার পরই তিনি নিখোঁজ হন। পরদিন শুক্রবার সকালে স্থানীয় কড়াইতলা কলাবাগানের শ্রমিকরা কাজ করতে এসে বাগানের পাশে রক্ত দেখতে পান। পরে পাশের একটি কূপে কলাপাতার নিচে মরদেহটি দেখতে পেয়ে এলাকাবাসী পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গলাকাটা মরদেহটি উদ্ধার করে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি ছুরি উদ্ধার করা হয়।

নিহত আরিফুরের বাড়ি কুড়িগ্রামের উলিপুর পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের রামদাস ধনিরাম সরদারপাড়া গ্রামে। কৃষক পরিবারে জন্ম নেওয়া নিহত আরিফুল ইসলাম তিন ভাই বোনের মধ্যে সকলের ছোট ছিলেন। তিনি ২০১৯ সালে উলিপুর এমএ মতিন কারিগরি ও কৃষি কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। গত শনিবার রাতে জানাযা শেষে এলাকার কবরস্থানে আসিফকে দাফন করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা