kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ঈশ্বরদীর কামালকে টাঙ্গাইলে নৃশংসভাবে খুন

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঈশ্বরদীর কামালকে টাঙ্গাইলে নৃশংসভাবে খুন

কামাল হোসেন

পাবনা ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়নের চররুপপুর সরদারপাড়ার কামাল হোসেন (৪৫) টাঙ্গাইলে গিয়ে নৃশংসভাবে খুন হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার রাত ৮টায় কামালের লাশ নিজ বাড়িতে আসলে এক হৃদয় বিদারক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। তিনি ওই এলাকার মৃত জালাল সরদারের ছেলে। 

নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, কামাল গত বুধবার জরুরী কাজে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে যান। কিন্তু পরের দিন বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই পরিবারের লোকজন তার মোবাইল বন্ধ পান। বিকেলে মির্জাপুর থানা পুলিশের মাধ্যমে জানতে পারেন কে বা কারা কামালকে হত্যা করে গামছা দিয়ে হাত বেঁধে মির্জাপুর মহাসড়কের পাশে ফেলে রেখে গেছে। পরিবারের পক্ষ থেকে আত্মীয়-স্বজন গিয়ে থানা পুলিশের মাধ্যমে লাশটি বাড়িতে আনেন।

নিহত কামালের ছেলে কামরুজ্জামান কালের কণ্ঠকে জানান, কি কারণে কে বা কারা তার বাবাকে এমন নৃশংসভাবে হত্যা করেছে তা তিনি জানেন না। তবে ইতিপূর্বে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে পরিবারসহ তারা বসবাস করতেন। সেখানকার পূর্বের ঘটনার কোনো জেরের কারণেই হয়তো বা তার বাবাকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে বলে দাবি করে খুনিদের ফাঁসির শাস্তি দাবি করেন।

মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাইদুর রহমান কালের কণ্ঠকে জানান, লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছিল। সেখান থেকে নিহতের পরিবারের নিকট লাশটি হস্তান্তর করা হয়েছে। নিহত কামালের ছেলে কামরুজ্জামান বাদী অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। হত্যার কারণ জানা যায়নি। হত্যার রহুস্য উদঘাটন করে অপরাধীদের গ্রেপ্তার চেষ্টা বলে জানান ওসি।

উল্লেখ্য, নিহত কামাল ২০১৬ সালে ইউপি নির্বাচনে ঈশ্বরদীর পাকশী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড থেকে সদস্য (মেম্বার) পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে পরাজিত হয়েছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা