kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

সীমান্ত দিয়ে ঢুকছে ভারতীয় চা পাতা, হুমকির মুখে চাষীরা

পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি    

২৩ অক্টোবর, ২০১৯ ২১:২৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সীমান্ত দিয়ে ঢুকছে ভারতীয় চা পাতা, হুমকির মুখে চাষীরা

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে ভারতীয় নিম্নমানের চা পাতা অবাধে প্রবেশ করছে। ফলে অবৈধ পথে আসা ভারতীয় চা পাতার দাম দেশীয় চা পাতার তুলনায় অনেক কম হওয়ায় স্থানীয় অনেক হোটেল, রেস্তেরা ও সাধারণ ক্রেতারা বাংলাদেশি চা পাতা না কিনে ভারতীয় চা পাতা কিনছে। ফলে একদিকে সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে অন্যদিকে ক্ষুদ্র চা চাষীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ভারত থেকে অবৈধ ভাবে আসা ওই চা পাতা প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বুড়িমারী জিরোপয়েন্ট, দহগ্রাম,পাটগ্রাম ও বাউরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ভারতীয় চা পাতা তৃপ্তি, সোনাল, গ্রিন ফ্রেশসহ বিভিন্ন নামের নিম্নমানের চা পাতা। এসব ভারতীয় চা পাতা ১ কেজি  বিক্রি হচ্ছে ২৩০ টাকা থেকে ২৫০ টাকা। আর বাংলাদেশি ৫০০ গ্রাম চা পাতা বিক্রি হচ্ছে প্রায় দ্বিগুণ দামে ২১০ টাকা থেকে ২২০ টাকা।

স্থানীয় বাউরা রেলস্টেশনের চায়ের দোকানদার মো. দুলাল হোসেন ও জিয়ারুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশি চা পাতার দাম ভারতীয় চা পাতার চেয়ে দ্বিগুণ। এর ফলে ভারতীয় চা পাতার দাম তুলনামূলক অনেক কম থাকার কারণে অনেক চায়ের দোকানদাররা ভারতীয় চা পাতা ব্যবহার করছে।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট চা প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আরিফ খান বলেন, ভারতীয় চা পাতা অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করলে ক্ষুদ্র চা চাষিরা ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এ কারণে তাদের কচি চা পাতা কম দামে বিক্রি করতে হবে। কারণ তারা সবুজ কচি চা পাতা কম্পানির নিকট বিক্রি করে। তাছাড়া রাজস্ব হারাবে সরকার।

পাটগ্রাম থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত বলেন, ভারতীয় চা পাতা অবৈধভাবে বাংলাদেশে নিয়ে আসায় চলতি অক্টোবর মাসে ২০৯০ কেজি ভারতীয় চা পাতাসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অবৈধ পণ্য ভারত থেকে যাতে বাংলাদেশ প্রবেশ করতে না পারে এ কারণে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

পাটগ্রাম উপজেলার ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) দীপক কুমার দেব শর্মা বলেন, এ বিষয়ে আমাদের বিজিবি, পুলিশ যে অভিযান করছে তা অব্যাহত থাকবে।  ভারতীয় চা পাতা কোনো ক্রমে বাংলাদেশে ঢুকতে দেওয়া যাবে না। এ জন্য আমরা তৎপর রয়েছি। অবৈধভাবে যারা ভারতীয় চা পাতা দেশে নিয়ে আসবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা