kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রেমের সম্পর্ক গড়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী, আটক ৩

লক্ষ্মীপর প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ১৯:২৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রেমের সম্পর্ক গড়ে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী, আটক ৩

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে ১৫ বছরের এক কিশোরীকে ডেকে নিয়ে রাতভর গণধর্ষণের অভিযোগে তিন যুবককে আটক করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) দুপুরে উপজেলার ভাদুর ইউনিয়নের পশ্চিম ভাদুর গ্রাম থেকে পুলিশ তাদের আটক করে। এর আগে সকালে ওই কিশোরীকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে লক্ষ্মীপর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

আটককৃতরা হলেন পশ্চিম ভাদুর গ্রামের বাসিন্দা ইমন, রাসেল ও শরীফ। ওই কিশোরী উপজেলার ভোলাকোট ইউনিয়নের নোয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, নোয়াপাড়া গ্রামের ওই কিশোরীর বাবা-মা কয়েক বছর আগেই পৃথক বিয়ে করে অন্যত্র চলে যান। বাড়িতে কিশোরী একাই বসবাস করতো। এ সুযোগে কিছুদিন আগে পশ্চিম ভাদুর গ্রামের মো. ইব্রাহিমের ছেলে শাওন ওই কিশোরীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে। সোমবার (২১ অক্টোবর) রাতে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে শাওন কিশোরীকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। পরে পশ্চিম ভাদুর গ্রামে বন্ধু ইমনের বাড়িতে নিয়ে ৫ জন মিলে রাতভর কিশোরীকে জোরপূর্বক গণধর্ষণ করা হয়। সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পৌঁছে মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে শাওন পলাতক রয়েছে।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) ডা. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ধর্ষণের শিকার এক কিশোরীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করে তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছে। তাকে এখন হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। 

এ ব্যাপারে রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, গণধর্ষণের ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাকি অভিযুক্ত শাওনসহ দুইজনকে আটকে অভিযান অব্যাহত আছে। এ ঘটনায় কিশোরীর পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা