kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চবিতে বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করল ছাত্রলীগ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২২ অক্টোবর, ২০১৯ ১৯:০৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চবিতে বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করল ছাত্রলীগ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রলীগকে বগি ভিত্তিক বিভিন্ন গ্রুপের নামে চিকামারা, প্ল্যাকার্ড, টি-শার্ট, স্লোগান সম্পূর্ণরূপে নিষিদ্ধ করতে দ্বিতীয়বারের মতো হুঁশিয়ারি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

আজ মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক মো. আহসান হাবীব স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের তথ্য জানান। এতে আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে যথাযথ সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানানো হয়। 

এর আগে ২০১৬ সালের ২২ জুলাই বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। এরপর মাসখানেক নীরব থাকার পর আবার বগিভিত্তিক রাজনীতি শুরু হয়। এ ছাড়া তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ, আধিপত্য বিস্তার ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করার অভিযোগে ২০০৯-১৪ সালের মধ্যে তিনবার বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রশাসনিক তৎপরতার অভাব আর শাখা ছাত্রলীগের উদাসীনতায় প্রতিবারই উপেক্ষিত হয় এই বিষয়টি।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা যায়, কমিটি বিলুপ্তির প্রায় ২০ মাস পর চলতি বছরের ১৪ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নতুন কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। এতে রেজাউল হক রুবেলকে সভাপতি এবং ইকবাল হোসেন টিপুকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এরপর তারা বগি ভিত্তিক রাজনীতি বন্ধ করে হলভিত্তিক রাজনীতি সক্রিয় করার ষোষণা দেন। কিন্তু বাস্তব চিত্র এখন পর্যন্ত এই ঘোষণার পুরোপরি উল্টো। আসন্ন ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নতুন কর্মীদের নিজেদের গ্রুপে ভিড়াতে বগিভিত্তিক রাজনীতির প্রভাব আরো ব্যাপক আকারে ধারণ করেছে। যা সম্প্রতি ক্যাম্পাসের মূল ফটক, আবাসিক হল, একাডেমিক ভবন, ক্যান্টিন, গুরুত্বপূর্ণ সড়কসহ ক্যাম্পাসের সর্বত্র বিভিন্ন গ্রুপের নামে চিকা মারা দেখেই বুঝা যাচ্ছে। 

এ বিষয়ে বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক মো. আহসান হাবীব কালের কণ্ঠকে বলেন,  ছাত্রলীগের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখায় বগি নিয়ে রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ছাত্রলীগ একটা পরিবার। তাই প্রকৃত ছাত্রলীগের কর্মীদের কোনো গ্রুপের নয়, ছাত্রলীগের ব্যানারেই রাজনীতি করতে হবে। এতে আলাদা করে বিভিন্ন বগি বা গ্রুপিং করার সুযোগ নেই।

তিনি আরো বলেন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের অনুমতিক্রমে এ ধরনের কার্যক্রম সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ করা হয়। এই আদেশ যে অমান্য করবে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল কালের কণ্ঠকে বলেন, বগিভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করায় কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ স্বাগত জানাচ্ছি। এ সিদ্ধান্তকে যারা অমান্য করবে কেন্দ্রীয় কমিটির সঙ্গে আলোচনা করে তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ছাড়া যারা কেন্দ্রের সিদ্ধান্তকে না মেনে বগিভিত্তিক রাজনীতি করবে তারা আসন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ও হল কমিটিতে স্থান পাবে না।

উল্লেখ্য, বর্তমানে প্রায় ১০টি বগিভিত্তিক গ্রুপ চবি ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় আছে। এর মধ্যে সিক্সটি নাইন, ভিএক্স, কনকর্ড, একাকার, এপিটাফ, আরএস, বাংলার মুখ ও উল্কা এই গ্রুপগুলো চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী। অন্যদিকে সিএফসি এবং বিজয় গ্রুপ বর্তমান সরকারের শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা